সুবল রায়, বিরল দিনাজপুর থেকেঃ ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে দিনাজপুরের বিরলে একটি বিদ্যালয়ের জায়গা দখল করে দোকান ঘর নির্মাণের অভিযোগ উঠেছে। বিদ্যালয়ের জায়গা দখলমুক্তসহ ঘটনার সাথে জড়িতদের বিচার দাবি করেছে বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ স্থানীয়রা। প্রশাসন বলছে দখল দারিত্ম দুর করতে পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে।

দিনাজপুরের বিরল উপজেলার নাড়াবাড়ী ফতেহাট সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় এক একর ৩৯ শতক জমির উপর স্থাপিত হয় ১৯৪৮ সালে। সম্প্রতি ওই জমির মালিকানা দাবি করে একই এলাকার নুর ইসলাম ও মিজানুর রহমান।

এ ব্যাপারে আদালতে একটি মামলা চলমান রয়েছে। কিন্তু গত এক সপ্তাহের ব্যবধানে মালিকানা দাবি করা দুই ব্যক্তি মাস্তান বাহিনীর দাপট খাটিয়ে বিদ্যালয়ের প্রায় ৫০ শতক জমি দখল করে নির্মাণ করেছে দোকানঘর। বাকী জায়গাটুকুও দখল করার চেষ্টা চালাচ্ছে তারা। এই ঘটনার প্রতিবাদে ফুসে উঠেছে শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ স্থানীয়রা।

বৃহস্পতিবার দুপুরে পালন করেছে মানববন্ধনসহ বিক্ষোভ কর্মসূচী, যাতে অংশগ্রহন করেছে আশপাশের বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরাও। অতিদ্রুত দখলমুক্ত করে জড়িতদের বিচার দাবি করেছেন তারা।

বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি’ সভাপতি আবু হেনা মোস্তফা কামাল ও প্রধান শিক্ষক আশরাফুল ইসলাম জানিয়েছেন, বিদ্যালয়ের জায়গা দখল হয়ে গেলে শিক্ষার্থীদের খেলার মাঠ থাকবে না। ইতিমধ্যে এই ঘটনায় অভিযোগ দায়ের করা হলেও কোন কাজ হয়নি।

যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ তাদের পাওয়া যায়নি। তবে তাদের পরিবারের দাবি, ওই জায়গাটি তাদের মালিকানাধীন। এখানে বিদ্যালয়ের কোন জায়গা নেই।

শহর গ্রাম ইউনিয়ন পরিষদেও চেয়ারম্যান আব্দুর রহমান মুরাদ জানান, এর আগে বিষয়টি মিমাংসার চেষ্টা করেছি। কিন্তু মিমাংশা করতে পারিনি। তবে থানা বিষয়টি জানেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও বিরল পৌর প্রশাসক এ,বি,এম রওশন কবীর জানিয়েছে, বিষয়টি তারা জানেন। কিন্তু আদালতে বিষয়টি বিচারাধীন থাকায় তাদের কিছু করার নেই। এরপরও দখলদারিত্ব বন্ধ করতে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে আদালতে আবেদন করতে।

অতি দ্রুত বিদ্যালয়ের জায়গা দখলমুক্ত করে বিদ্যালয়ে সুষ্ঠু পরিবেশ ফিরিয়ে নিয়ে আসতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন সংশ্লিষ্টরা।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য