বীরগঞ্জ (দিনাজপুর) প্রতিনিধি ॥ বীরগঞ্জে ৩য় শ্রেণীর ছাত্রীকে জোর পূর্বক ধর্ষন ঘটনা ঘটেছে। রাতেই ৩য় শ্রেণীর ছাত্রী যৌনাঙ্গে অস্ত্রপাচার করা হয়েছে এবং পুলিশ অভিযান চালিয়ে ধর্ষককে গ্রেফতার করে জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

বীরগঞ্জ থানা সুত্রে জানা গেছে, উপজেলা সদর থেকে ১৫ কিলোমিটার পূর্বে মধুবনপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৩য় শ্রেণীর ছাত্রী ও একই গ্রামের ইউনুছ আলীর শিশু কন্যা রেখা খাতুন (৯) গত মঙ্গলবার বিকেলে প্রকৃতির ডাকে সারা দিতে বাড়ী সংলগ্ন ভুট্টাক্ষেতে যায়। আগে থেকে ওৎপেতে থাকা ওই গ্রামের রিয়াজ উদ্দিনের লম্পট ছেলে মোঃ ইছা (৩৫) ওই শিশুটি ভুট্টাক্ষেতে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোর পূর্বক ধর্ষক করে। ৩য় শ্রেণীর ছাত্রী রেখা খাতুনের চিৎকার করলে ধর্ষক পালিয়ে যায়।

মা-সাবিনা ইয়াসমিন, খালা-শেফালী খাতুন, মাম-শহিদুল ইসলাম ও চাচা-হামিদুল উসলাম সহ পরিবারের লোকেরা উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। অবস্থার অবনতি হলে দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করা হয়। যৌনাঙ্গে প্রচুর রক্ত খরনের কারনে রক্তদিয়ে রাতেই অস্ত্রপাচার করা হয়। পুলিশ রাতেই অভিযান চালিয়ে মোঃ ইছাকে গ্রেফতার করে দিনাজপুর জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

এ ঘটনায় ছাত্রীর বাবা ইউনুছ আলী বাদী হয়ে ২০০০ সালের ও শিশু দমন বিশেষ আইন (সংশোধনী/২০০৩) আইনের ৯(১) ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

বুধবার সকালে মামলার তদন্তকারী অফিসার প্রানকৃঞ্চ দেব নাথ একদল পুলিশ নিয়ে অভিযান চালিয়ে ধর্ষককে গ্রেফতার করে দিনাজপুর জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে সোপর্দ  করেছে।

ওসি তদন্ত মোঃ আব্দুল গনি সংবাদের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য