২১ ফেব্রুয়ারী আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারীতে নাশকতার পরিকল্পনার গোপন বৈঠক থেকে জামায়াতে ইসলামীর উপজেলা আমির, দুই উপজেলার সেক্রেটারীসহ ৩৩ জন জামায়াত শিবিরের নেতাকর্মীকে আটক করেছে ভুরুঙ্গামারী থানা পুলিশ। এ সময় জামায়াত শিবিরের সদস্য বাড়ানোর ফরম, চাঁদার রশিদ, লিফলেটসহ বেশ কিছু নথি উদ্ধার করে পুলিশ।

পুলিশ জানায়, গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ভুরুঙ্গামারী উপজেলার জয়মনিরহাট ইউনিয়নের ভারত সীমান্তবর্তী এলাকা পশ্চিম বাউশমারী জামে মসজিদে একুশে ফেব্রুয়ারী আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস সফল হোক ব্যানার টানিয়ে মসজিদের ভিতর  সরকার বিরোধী ও নাশকতার পরিকল্পনা বিষয়ে বৈঠকের করছিল জামায়াতের নেতাকর্মীরা।

বিষয়টি জানতে পেরে ভুরুঙ্গামারী থানা পুলিশ সেখানে অভিযান চালায়। পরে বৈঠকে গিয়ে তারা জানতে পারে স্থানীয় কেউ নেই। এলাকার জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মী। পরে তাদের আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়।

আটককৃতরা হলেন, ভুরুঙ্গামারী উপজেলা জামায়াতের আমির আজিজুল হক, সেক্রেটারী ও ভোটহাট মিয়াপাড়া জামে মসজিদের ইমাম আব্দুল বারী, নাগেশ্বরী উপজেলা জামায়াতের সেক্রেটারী আবু হানিফ পাথরডুবি দাখিল মাদ্রাসার সহকারি শিক্ষক আলী আজগর,

উত্তর তিলাই দাখিল মাদ্রাসার শিক্ষক নজরুল ইসলাম, মইদাম দাখিল মাদ্রাসার শিক্ষক মকবুল হোসেন, ভোটহাট দাখিল মাদ্রাসার শিক্ষক নুর আলম, জামায়াত রোকন ও ভোটহাট দাখিল মাদ্রাসার শিক্ষক নজরুল ইসলাম, শালঝোড় সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক আব্দুল বারী,

ঝুকিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক তাইফুর রহমান মানিক, পাথরডুবি দাখিল মাদ্রাসার সুপার আব্দুল আজিজ, থানাঘাট হাইস্কুলের সহকারি শিক্ষক আমজাদ হোসেন, মাদ্রাসা শিক্ষক আলী আকবর, বিলেরপাড় জামে মসজিদের ইমাম রফিকুল ইসলাম, জয়মনিরহাট কাঠের ব্রিজপাড় মসজিদের ইমাম, ছোট খাটামারী মসজিদের ইমাম নজরুল ইসলাম, হাজীপাড়া জামে মসজিদের ইমাম হবিবর রহমান, বাগভান্ডারের ইমাম গোলাপ উদ্দিন, জামায়াতের সমর্থক আইয়ুব আলী, লিয়াকত আলী নুরুল ইসলাম, মহিদুল ইসলাম, মিজানুর রহমান, রেজাউল করিম, ইসলামী ফাউন্ডেশনের ফরিদুল হক, আবুল কাশেম, জালাল উদ্দিন, ইমান আলী, দলিল লেখক নবিবর রহমান, সাইদুর রহমান, জামায়াত সদস্য আব্দুল হামিদ মিয়া, আবু সালেহ, জামায়াতের রোকন নুরুল ইসলাম ও সমর্থক আব্দুল করিম। এসময় তাদের ব্যবহৃত ৯টি মোটর সাইকেল ও ৮টি বাইসাইকেল জব্দ করে থানায় নিয়ে আসে পুলিশ। রাতে আটকদের নামে মামলা দেয় পুলিশ।

ভুরুঙ্গামারী থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) তাপস চন্দ্র পন্ডিত জানান, খবর ছিল তারা ২১ ফেব্রুয়ারীর দিনটি বেছে নিয়ে পরিকল্পনা বৈঠক করেছিল। বৈঠকে তাদের কাছে যেসব কাগজপত্র পাওয়া গেছে এতে প্রমানিত হয়েছে তারা জামায়াতের কাজ করে এবং প্র্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আটকরা নিজেদের জামায়াতের রাজনীতির সাথে জড়িত বলে স্বীকার করেছেন। এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। পরে গতকাল রাতেই আটককৃতদের কোর্টে পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য