মাহবুবুল হক খান, দিনাজপুর থেকেঃ দিনাজপুরে হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (হাবিপ্রবি) ছাত্রলীগের সাথে এলাকাবাসির দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। সংঘর্ষে ছাত্রলীগের ৫ নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে পুলিশ কয়েক রাউন্ড রাবার বুলেট ও টিআর সেল নিক্ষেপ করেছে। ক্যাম্পাসে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। বর্তমান পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সোমবার (২০ ফেব্রুয়ারী) বিকেলে ছাত্রলীগের কয়েক কর্মী লাইব্রেরীতে বই আনতে যায়। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয়ের সময় শেষ হয়ে যাওয়ায় (সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা) বই দিতে অস্বীকৃতি জানায় লাইব্রেরীর কর্মচারীরা। এ সময় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা ক্ষিপ্ত হয়ে বাইরে থেকে লাইব্রেরীর কর্মচারীদের অবরুদ্ধ করে রাখে ও কর্মচারীদের একজনকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে।

বিষয়টি মোবাইল ফোনে স্থানীয় যুবলীগ নেতা রায়হানুল ইসলামকে জানালে তিনি বহিরাগতদের নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনের সড়ক অবরোধ করে ক্যাম্পাসে প্রবেশের চেষ্টা করে। এ সময় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের সাথে তাদের সংঘর্ষ বেধে যায়। পরে সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। সন্ধ্যা পৌনে ৭টার দিকে আবারও দু’পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও ইট-পাটকেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটে।

এ সময় পুলিশ কয়েক রাউন্ড টিয়ার সেল ও ফাকা রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।  এই ঘটনায় ছাত্রলীগের ৫ নেতাকর্মী আহত হয়েছে বলে জানিয়েছে হাবিপ্রবি ছাত্রলীগের কার্যকরী সদস্য নাহিদ আহমেদ নয়ন। তিনি জানান, বহিরাগতরা অতর্কিতভাবে তাদের ২ জনকে মারধর করেছে এবং তাদের উপর হামলা চালিয়েছে।

দিনাজপুর কোতয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রেদওয়ানুর রহিম জানান, ঘটনার সংবাদ পাওয়ার পরপরই ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। বিশৃঙ্খলা এড়াতে ক্যাম্পাসে অতিরিক্ত পুলিশ মোাতায়েন করা হয়েছে। বর্তমান পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে বলে তিনি জানান।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য