সাত মুসলিম দেশের নাগরিকদের আমেরিকায় প্রবেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ নিয়ে প্রশ্ন তোলায় যুক্তরাষ্ট্রের ভারপ্রাপ্ত অ্যাটর্নি জেনারেল স্যালি ইয়াটসকে বরখাস্ত করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

ট্রাম্প শুক্রবার এমন এক নির্বাহী আদেশে সই করেন যাতে ৯০ দিনের জন্য ইরান, ইরাক, সিরিয়া, সুদান, লিবিয়া, ইয়েমেন ও সোমালিয়ার নাগরিকদের আমেরিকায় প্রবেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। সেইসঙ্গে ১২০ দিনের জন্য আমেরিকায় সব ধরনের শরণার্থীর প্রবেশাধিকারও স্থগিত করা হয়।  পাশাপাশি সিরিয়ার শরণার্থীদের ‘অনির্দিষ্টকালের জন্য’ আমেরিকায় নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

ট্রাম্পের এই ভিসা নিষেধাজ্ঞার নির্বাহী আদেশ কার্যকর না করার জন্য বিচার বিভাগের আইনজীবীদের নির্দেশ দিয়েছিলেন সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার শাসনামলে নিয়োগ পাওয়া ইয়াটস।  তিনি এক চিঠিতে বলেন, প্রেসিডেন্টের নির্দেশটি আইনসম্মত হয়েছে কিনা সে বিষয়ে তার সন্দেহ রয়েছে। চিঠিতে তিনি বলেন, “আমি যতক্ষণ ভারপ্রাপ্ত অ্যাটর্নি জেনারেল আছি ততদিন এই নির্বাহী আদেশের পক্ষে আদালতে কোনো আইনজীবী লড়াই করবে না।”

এ অবস্থায় নিজের নির্বাহী আদেশ প্রত্যাহার বা পুনর্বিবেচনা না করে উল্টো অ্যাটর্নি জেনারেলকে সরিয়ে দিলেন ট্রাম্প। হোয়াইট হাউজ এক বিবৃতিতে বলেছে, স্যালি ইয়াটস বিচার বিভাগের সঙ্গে ‘বিশ্বাসঘাতকতা’ করেছেন।

হোয়াইট হাউজ এক বিবৃতিতে বলেছে, “যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকদের সুরক্ষা দেয়ার লক্ষ্যে একটি ‘বৈধ’ নির্দেশ বাস্তবায়ন করতে অস্বীকৃতি জানিয়ে তিনি বিচার বিভাগের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করেছেন।” বিবৃতিতে বলা হয়, “প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ইয়াটসকে তার দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দিয়েছেন।”

ভার্জিনিয়ার অ্যাটর্নি ডানা বোয়েন্টেকে যুক্তরাষ্ট্রের নয়া ভারপ্রাপ্ত অ্যাটর্নি জেনারেল হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য