এক টেলিফোন কলে সিরিয়ার গৃহযুদ্ধ ও ইসলামিক স্টেটের (আইএস) বিরুদ্ধে লড়াই নিয়ে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে কথা বলেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

পুতিনের পাশাপাশি শনিবার আরো বেশ কয়েকজন বিশ্ব নেতার সঙ্গে ফোনে কথা বলেছেন যুক্তরাষ্ট্রের নতুন প্রেসিডেন্ট।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব গ্রহণের পর এই প্রথমবার পুতিনকে ফোন করলেন ট্রাম্প, জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

ট্রাম্প প্রশাসনের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, দেশে ডেমোক্রেট ও রিপাবলিকানদের এবং বাইরে ইউরোপীয় মিত্রদের বিরোধীতা সত্বেও ট্রাম্প মস্কোর ওপর আরোপ করা নিষেধাজ্ঞাগুলো তুলে নেওয়ার বিষয়টি বিবেচনা করছেন।

টেলিফোনে দুই নেতা প্রায় এক ঘন্টা কথা বলেন। কিন্তু তাদের আলাপের বিষয়ে হোয়াইট হাউস বা ক্রেমলিন, কারো বিবৃতিতেই নিষেধাজ্ঞা নিয়ে দুই নেতার মধ‌্যে কোনো আলোচনা হয়েছে বলে উল্লেখ নেই।

হোয়াইট হাউসের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “ইতিবাচক এই কলটি যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়ার সম্পর্ক, যা মেরামত করা দরকার, উন্নয়নের ক্ষেত্রে একটি উল্লেখযোগ‌্য সূচনা।

“আজকের এই কলটির পর দুই পক্ষ সন্ত্রাস ও অন‌্যান‌্য গুরুত্বপূর্ণ ইস‌্যুতে পারস্পরিক উদ্বেগ বিবেচনায় নিয়ে দ্রুত পদক্ষেপ নিতে পারবে বলে উভয় প্রেসিডেন্ট আশাবাদী।”

অপরদিকে ক্রেমলিনের বিবৃতিতে দুই নেতার আলাপকে ‘ইতিবাচক ও গঠনমূলক’ বলে বর্ণনা করা হয়েছে বলে জানিয়েছে বিবিসি।

আলাপে দুই নেতা সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াই, মধ‌্যপ্রাচ‌্য, আরব-ইসরায়েলে বিরোধ, কৌশলগত স্থিতিশীলতা, ইরানের পারমাণবিক প্রকল্প, উত্তর ও দক্ষিণ কোরিয়া এবং ইউক্রেইনের পরিস্থিতি নিয়ে কথা বলেছেন বলে জানিয়েছে ক্রেমলিন।

পুতিন ছাড়াও এদিন ট্রাম্প, ইউরোপীয় ইউনিয়নের দুই শীর্ষ নেতা জার্মানির অ‌্যাঙ্গেলা মের্কেল এবং ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ফ্রাঁসোয়া ওলন্দ, জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো অ‌্যাবে এবং অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী ম‌্যালকম টার্নবুলের সঙ্গেও কথা বলেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য