দিনাজপুর সংবাদাতাঃ পৃথিবীর সপ্তম আর্শ্চর্য্যের মধ্যে অন্যতম বাংলাদেশের সুন্দরবন রক্ষায় প্রতিকী গনভোটের রায় ঘোষনা উপলক্ষে বিক্ষোভ মিছিল ও ছাত্র সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সোমবার সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্ট দিনাজপুর শাখার আয়োজনে সংগঠনের সভাপতি এএসএম মনিরুজ্জামানের সভাপতিত্বে প্রেসক্লাবের সন্মুখ চত্বরে ছাত্র সমাবেশ ও শহরের প্রধান প্রধান সড়কে বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সকাল সাড়ে ১১টায় ছাত্রফ্্রন্টের নেতাকর্মী ও সর্মথকেরা বিভিন্ন শ্লোগানসহকাওে ও ফেস্টুন নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল বের করে। বিক্ষোভ মিছিলটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদিক্ষন শেষে আবারো প্রেসক্লাবের সামনে এসে ছাত্র সমাবেশে মিলিত হয়।

ছাত্র সমাবেশে বক্তরা বলেন,ক্ষমতার মসনদে থাকার জন্যেই সরকার সুন্দরবন ধ্বংসের চক্রান্তে মেতে উঠেছে। দেশ ও বিদেশের বিশেজ্ঞরা বিভিন্ন ভাবে ক্ষতির বিবরন ধরলেও সরকার কোনভাবেই তা মানতে নারাজ। তারা আরো বলেন,আমাদের দেশের সম্পদ ব্যবহার করে সরকার ইচ্ছেকৃত ভাবেই স্বীয় স্বার্থের কারনে প্রতিবেশী দেশ ভারতকে সমান ভাবে হিস্যা দিচ্ছে।

সুন্দরবন্ রক্ষার রায় ঘোষনা করে ছাত্র সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, তেল গ্যাস বিদুৎ বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির নেতা ও ফুলবাড়ি কয়লাখনি আন্দোলনের অন্যতম নেতা আমিনুল ইসলাম বাবুল,বাসদ(মার্কসবাদী)দিনাজপুর জেলার সমন্বয়ক রেজাউল ইসলাম সবুজ,বাসদ(মাহাবুব)এর কেন্দ্রীয় ভারপ্্রপ্ত আহবায়ক সন্তোষ গুপ্ত,সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্্রন্ট কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আহসানুল আরেফিন তিতু এবং বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন দিনাজপুর শাখার সাধারন সম্পাদক জামিনুল ইসলাম।

অন্যদিকে একই দিন সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্্রন্ট এর ৩৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন উপলক্ষে  দিনাজপুর প্রেসক্লাব মিলনায়তনে এক আলোচনা সভা কাউন্সিল প্রস্তুতি কমিটির আহবায়ক গোবিন্দ চন্দ্র রায়ের সভাপতিতে অনুষ্ঠিত্ব হয়। নেতৃবৃন্দ তাদের বক্তব্যে বলেন,সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্্রন্টের পতাকা তলে ঐক্যবদ্ধ,থেকে আন্দোলন সংগ্রামের মাধ্যমে বিজয় ছিনিয়ে আনতে হবে নইলে সরকার একের পর এক দেশ ধ্বংসকারী সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করে যাবে। সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন ছাত্রফ্্রন্ট হাবিপ্রবি শাখার সংগঠক উর্মি চক্রবর্ত্তী,সরকারী কলেজ শাখার সদস্য লিটন রায়,খানসামা শাখার সাঃ সম্পাদক জুয়েল ইসলাম প্রমুখ।

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, দেশের সম্পদ ও শিক্ষা ব্যবস্থা রক্ষায় সকলকে শক্তিশালি আন্দোলন গড়ে তুলতে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে এবং আগামী দিনে আন্দোলন সংগ্রামে যোগ দিতে হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য