রহস্যের অন্ধকারেই থেকে গেল ২০১৪ সালে ২৩৯ জন আরোহী নিয়ে নিখোঁজ হওয়া মালয়েশিয়া এয়ারলাইন্সের এমএইচ৩৭০ উড়োজাহাজটি। তিন বছর পর স্থগিত ঘোষণা করা হল বিমানটির অনুসন্ধান কার্যক্রম।

মঙ্গলবার অনুসন্ধান অভিযানে ব্যবহৃত সর্বশেষ যান তল্লাশি এলাকা ত্যাগ করে।

এরপরই আনুষ্ঠানিকভাবে উড়োজাহাজটির অনুসন্ধান অভিযান শেষের ঘোষণা দেওয়া হয়। মালয়েশিয়া, অস্ট্রেলিয়া ও চীন অভিযানে অংশ নিয়েছিল।

২০১৪ সালের ৮ মার্চ মালয়েশিয়ার রাজধানী কুয়ালালামপুর থেকে চীনের রাজধানী বেইজিংগামী বোয়িং ৭৭৭ উড়োজাহাজটি হঠাৎ করে রাডার থেকে হারিয়ে যায়। উড়োজাহাজটির অধিকাংশ আরোহী চীনের নাগরিক ছিলেন।

পরে স্যাটেলাইটে পাওয়া তথ্য বিশ্লেষণ করে কর্মকর্তারা বলেছিলেন, অস্ট্রেলিয়ার পার্থ শহর থেকে উত্তর-পশ্চিমে ভারত মহাসাগরে বিমানটি বিধ্বস্ত হয়েছে।

তল্লাশি অভিযানে অংশ নেওয়া তিন দেশের পক্ষ থেকে এক যৌথ বিবৃতিতে বলা হয়, “এখন পর্যন্ত উদ্ভাবিত সব ধরনের বৈজ্ঞানিক উপায় ব্যবহার করে তল্লাশি অভিযান চালানোর পরও নিখোঁজ উড়োজাহাজটির খোঁজ পাওয়া যায়নি।”

“উড়োজাহাজটির খোঁজে সমুদ্রের তলদেশে তল্লাশি অভিযান শেষ করার সিধান্ত নেওয়া আমাদের জন্য সহজ ছিল না।”

তারা জানায়, গত তিন বছর ধরে ভারত মহাসাগরের তলদেশে এক লাখ ২০ হাজার স্কয়ার কিলোমিটার এলাকা তন্নতন্ন করে খোঁজা হয়েছে।

গত বছর জুলাইয়ে মালয়েশিয়া, অস্ট্রেলিয়া ও চীন উড়োজাহাজটি খুঁজে পাওয়া না গেলে বা নতুন করে আর কোনও ক্লু পাওয়া না গেলে তল্লাশি অভিযান বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়।

ঘটনার তদন্তকারীরা গত মাসে অস্ট্রেলিয়ার কাছে তল্লাশি অভিযানের সময় আরও কয়েকমাস বাড়ানোর আবেদন করেছিল। কিন্তু নতুন কোনও ক্লু পাওয়া না যাওয়ায় অস্ট্রেলিয়া সরকার তা বাতিল করে দেয়।

ফ্লাইট এমএইচ৩৭০ এর আরোহীদের স্বজনরা তল্লাশি অভিযান শেষ করে দেওয়ার সিদ্ধান্তকে ‘দায়িত্বজ্ঞানহীন’ বলেছেন।

ফেইসবুকে ভয়েস৩৭০ নামে একটি পাতা খুলেছেন তারা।

সেখানে তারা বলেন, “উড়োজাহাজে যাতায়াতকারী লোকজনের প্রতি এটি অবশ্যপালনীয় দায়িত্ব ছিল, যা পালন করা হল না।”

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য