সৌদি আরবে নিরাপত্তা বাহিনীর অভিযানে মসজিদে নববীতে বোমা হামলা ও অন্যান্য হামলার সঙ্গে জড়িত দুই ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। গত শনিবার রাজধানী রিয়াদে চালানো অভিযানে ওই দুজন নিহত হন বলে দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। এক সংবাদ সম্মেলনে ওই কর্মকর্তারা জানান, উত্তর রিয়াদের আল ইয়াসমিন এলাকায় অভিযান চলাকালে ওই দুই সন্দেহভাজন গ্রেপ্তার এড়াতে নিরাপত্তা বাহিনীকে লক্ষ্য করে গুলি করে।

পরে নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে গোলাগুলিতে ওই দুজন প্রাণ হারান। এ সময় নিরাপত্তা বাহিনীর এক কর্মকর্তাও আহত হন। ওই দুজনকে তায়ে আল সেয়ারি ও তালাল বিন সামরান আল সায়েদি বলে শনাক্ত করেছেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মনসুর আল তুর্কি। সেয়ারিকে সৌদি আরবে তৎপর সবচেয়ে ভয়ঙ্কর জঙ্গিদের অন্যতম বলে বিবেচনা করা হয়। সে আত্মঘাতী বোমা হামলায় ব্যবহৃত বিস্ফোরক বেল্ট তৈরিতে বিশেষজ্ঞ বলে জানিয়েছেন ওই কর্মকর্তারা।

২০১৫-র অগাস্টে আসির প্রদেশে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের ব্যবহৃত একটি মসজিদে আত্মঘাতী বোমা হামলা চালানো হয়। ওই হামলায় ১৫ জন নিহত হন। ওই হামলায় জড়িত অন্যতম সন্দেহভাজন হিসেবে সেয়ারির নাম প্রকাশ করেছিল সরকার ঘনিষ্ঠ আল রিয়াদ সংবাদপত্র। কর্মকর্তারা জানান, ওই ঘটনার পর সেয়ারি আরো দুটি বিস্ফোরক বেল্ট তৈরি করেন; এর একটি মদিনায় ও অন্যটি জেদ্দায় বোমা হামলার সময় ব্যবহার করা হয়।

সৌদি আরবের অস্থিরতা কবলিত এলাকাগুলোতে হত্যার সঙ্গে জড়িত আছেন সন্দেহে সেয়ারির সঙ্গী আল সায়েদিকে এর আগে দুবার আটক করেছিল নিরাপত্তা বাহিনী, জানিয়েছেন কর্নেল বাসাম আতিহ। যে বাসায় এ দুজন লুকিয়ে ছিলেন, সেখান থেকে দুটি বিস্ফোরক বেল্ট, একটি গ্রেনেড এবং রাসায়নিক দ্রব্য উদ্ধার করেছে নিরাপত্তা বাহিনী। এসব রাসায়নিক বিস্ফোরক তৈরিতে কাজে লাগানো হতো বলে ধারণা করা হচ্ছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য