থাইল্যান্ডের দক্ষিণাঞ্চলে অকাল বৃষ্টিতে সৃষ্ট বন্যায় ছয়জনের মৃত্যু হয়েছে। অঞ্চলটির সড়ক ও রেল যোগাযোগ বন্ধ হয়ে গেছে। বিমানবন্দরও বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

এই দুর্যোগের পর শুক্রবার দেশটির প্রধানমন্ত্রী প্রায়ুথ চান-ওচা অঞ্চলটিতে সফর করেন।

সাধারণত নভেম্বরের শেষ দিকে থাইল্যান্ডে বর্ষাকাল শেষ হয়। দেশটিতে জানুয়ারিতে ভারী বর্ষণ বিরল ঘটনা। দক্ষিণাঞ্চলের সমুদ্র সৈকত ও রিসোর্টগুলোর জন্য এই সময়ই ব্যবসার মূল সময়।

মে থেকে নভেম্বর মাস পর্যন্ত থাইল্যান্ডে বর্ষাকাল।

দেশটির বিমানবন্দর বিভাগ জানিয়েছে, শুক্রবার দক্ষিণাঞ্চলীয় প্রদেশ নাকোন সি তামারাত বিমানবন্দরের ২৬টি ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে। বৃষ্টির কারণে রানওয়ে ডুবে গেলে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দেশটির জাতীয় দুর্যোগ সতর্কীকরণ কেন্দ্রের একজন কর্মকর্তা বলেন, “অকাল ভারী বৃষ্টির কারণে ১ জানুয়ারি থেকে বন্যা শুরু হয়েছে।”

ওই কর্মকর্তা আরো জানান, বন্যার কারণে ছয়ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে।

পানিতে রেললাইন তলিয়ে যাওয়ায় থাইল্যান্ড ও মালয়েশিয়ার মধ্যকার প্রধান রেল যোগাযোগ বন্ধ রাখা হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য