চিরিরবন্দর (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের চিরিরবন্দরে বাংলাদেশ সংস্কৃত ও পালি শিক্ষা বোর্ডের আওতাধীন আদ্য, মধ্য ও উপাধি পরীক্ষা পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে ডেকোরেটর ঘেরা দিয়ে। গত বৃহস্পতিবার সরেজমিন উপজেলার ইসুবপুর ইউনিয়নের টোলের বাজারে বসন্ত কুমার সংস্কৃত মহাবিদ্যালয়ে গিয়ে দেখা গেছে এ দৃশ্য।

গত ১৯ ডিসেম্বর সোমবার হতে আদ্য, মধ্য, উপাধি পরীক্ষার মধ্যে গত ২২ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার শেষ উপাধি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। পরীক্ষায় দায়িত্বপ্রাপ্ত শিক্ষক ক্ষিতিশ চন্দ্র রায় জানান, এবারে ১১৩ জন পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করায় শ্রেণিকক্ষ না থাকায় মহাবিদ্যালয় মাঠে ডেকোরেটর দিয়ে পরীক্ষা নেয়া হচ্ছে।

এ ব্যাপারে দগরবাড়ী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বিমল চন্দ্র দাসের সাথে কথা হলে তিনি জানান, উক্ত মহাবিদ্যালয়টিতে পর্যাপ্ত বসার রুম থাকলে ছাত্র/ছাত্রীর সংখ্যা বৃদ্ধি পেত। মহাবিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ ডাঃ অখিল চন্দ্র রায়ের সাথে কথা হলে তিনি জানান. এই মহাবিদ্যালয়টি ১৯৯১ সালে টোলের বাজারে ৩৪ শতাংশ জমির উপর প্রতিষ্ঠিত করে নিজস্ব তহবিল দিয়ে এভাবে গড়ে তোলা হয়েছে।

তবে বর্তমান চিরিরবন্দর উপজেলায় একটি মাত্র সংস্কৃত মহাবিদ্যালয় হওয়ায় এখানে পাশ্ববর্তী উপজেলা পাবর্তীপুর, ফুলবাড়ি, সৈয়দপুর, বদরগঞ্জ, বিরামপুর, খানসামাসহ বিভিন্ন এলাকা থেকে পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেছেন।

তিনি আরো দুঃখ করে জানান, এই মহাবিদ্যালয়ের একজন অধ্যক্ষ ও ২জন শিক্ষক থাকলেও এখানে অধ্যক্ষ ও শিক্ষকের বেতন প্রতি মাসে ১শত ৪৯ টাকা ও পিয়নের বেতন ৭শত ৪৯ টাকা ৫০ পয়সা হলেও প্রতি মাসের বেতন বছরের শেষে একসাথে পাই । উপাধি ডিগ্রী লাভ করার পর বিভিন্ন বেসরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে হিন্দু ধর্মীয় (পন্ডিত) শিক্ষক হিসেবে চাকুরীতে আবেদন করার সুযোগ পায়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য