রংপুরের পীরগাছা উপজেলার অন্নদানগরে ভিটেমাটি থেকে উচ্ছেদ করতে না পেরে মাহবুবুল আলম নামের এক ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা চালায় একদল সন্ত্রাসী। বর্তমানে সন্ত্রাসীদের হুমকীর মুখে গুরুতর অসুস্থ্য ওই ব্যবসায়ী বাড়ি ছাড়া হয়ে নিকট আত্মীয়ের বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছেন। এঘটনায় তিনি র‌্যাব-১৩ ও পীরগাছা থানায় অভিযোগ করেছেন।

অভিযোগে জানা যায়, উপজেলার বামন সরদার গ্রামের মৃত মজিবর রহমানের ছেলে মাহবুবুর রহমান (৪৫) স্থানীয় অন্নদানগর বাজারে নিজস্ব দোকানে লাইব্রেরী ব্যবসা এবং পার্শ্ববর্তি কলাবাড়ি মৌজায় পৌত্রিক সূত্রে প্রাপ্ত ৪৮ শতাংশ জমিতে চাষাবাদ করতেন। কিছু দিন আগে তিনি মানষিক রোগে আক্রন্ত হয়ে অসুস্থ্য হয়ে পড়লে তার দোকান ঘর ও আবাদী জমি জবর দখলের চেষ্টা চালায় তার ভাই শফিকুল, আনোয়ারুল এবং চাচা তোফাজ্জল হোসেন।

তারা মাহবুবুর রহমানের দোকান ও জমি জবর দখল করতে না পেরে ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীদের লেলিয়ে দেয়। তাদের লেলিয়ে দেয়া সন্ত্রাসীরা ৪ ডিসেম্বর সকালে ব্যবসায়ী মাহবুবুর রহমানকে অন্নদানগর বাজার থেকে বাড়ি ফেরার পথে ধারালো ছোরা দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে। সন্ত্রাসী হাবিবুর, আবুল, জয়নাল, আজিজুল, রাশেদুল ও জিয়ারুল তাদের সহযোগি ৭/৮ জন সহ ব্যবসায়ী মাহবুবুর রহমানকে হত্যার চেষ্টা চালানোর সময় স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এলে তারা পালিয়ে যায়। পরে আগত লোকজন ব্যবসায়ী মাহবুবুর রহমানকে উদ্ধার করেন। ওই ঘটনার পর থেকে সন্ত্রাসীরা ব্যবসায়ী মাহবুবুর রহমানকে বাড়িতে যেতে দিচ্ছেন না।

ব্যবসায়ী মাহবুবুর রহমান বলেন, সন্ত্রাসীদের হুমকীর মূখে গত ১৫/১৬ দিন যাবত রংপুর শহরের এক নিকট আতœীয়ের বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছেন তিনি। জীবনের ভয়ে বাড়ি যেতে পাচ্ছেন না। এই সুযোগে সন্ত্রাসীরা তার জমির ধান কেটে নিয়েছেন। তিনি বলেন, এব্যাপারে প্রতিকার চেয়ে র‌্যাব-১৩’র অধিনায়ক ও পীরগাছা থানার অফিসার ইনচার্জ বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য