নীলফামারীর ডিমলায় সোমবার দুপুর সাড়ে ১২টায় ডিমলা ইসলামিয়া ডিগ্রী কলেজ জাতীয়করনের দাবীতে কলেজের সামনের রাস্তায় ঘন্টাব্যাপি মানববন্ধন করেছে কলেজ শিক্ষক, কর্মচারী ও শিক্ষার্থীরা।

শিক্ষকদের অভিযোগ ১৯৮৩ সালে কলেজটি প্রতিষ্ঠিত হলেও বর্তমান সরকারের কলেজ জাতীয়করনের সকল শর্ত পুরন থাকার পরও কলেজটি জাতীয়করন না হওয়ায় আমাদের প্রতি অবিচার করা হয়েছে।

কলেজটিতে বর্তমানে ২হাজার ছাত্র ও ১হাজার ৫শ ছাত্রীসহ সাড়ে ৩হাজার শিক্ষার্থী অধ্যায়ন করছে। কর্মরত রয়েছে ৬৭জন শিক্ষকসহ ৭৯জন কর্মকর্তা কর্মচারী। ১৯৯৩ সালে থেকে কলেজটি ডিগ্রি ও ২০১১ সাল থেকে বাংলা, ইতিহাস রাষ্ট্রবিজ্ঞানসহ বিএসসি কোর্স চালু রয়েছে।

কলেজের রাষট্রবিজ্ঞান প্রভাষক করিমুল ইসলাম বলেন, ১৯৯৫ সালে ডোমারে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ডিমলা ইসলামিয়া ডিগ্রি কলেজটি জাতীকরনের প্রতিশ্রুতি প্রদান করার পরও অদ্যবদী কলেজটি জাতীয়করন করা হয়নি।

কলেজটি জাতীয়করন না হওয়ায় শিক্ষার্থীসহ শিক্ষকগন চরম হতাশা প্রকাশ করেন। কলেজটি দ্রুত সময়ের মধ্যে জাতীয়করন করার জন্য মানববন্ধন শেষে ডিমলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রেজাউল করিমের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্বারকলিপি প্রদান করেন।

এ সময় বক্তব্য রাখেন কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হাসিম হায়দার অপুু, অধ্যাপক খায়রুল ইসলাম, আব্দুল সালেক, মহানন্দ পাল, সফিকুল ইসলাম, কনক কুমার অধিকারী, দুলাল ইসলাম প্রমুখ।

চলতি বছরের গত ১২ জুলাই কলেজ জাতীয়করনের দাবীতে মানববন্ধনসহ বিভিন্ন্ কর্মসুচী পালন করে কর্মরত শিক্ষক কর্মচারী ও শিক্ষার্থীরা। দ্রুত সময়ের মধ্যে কলেজটি জাতীকরন ঘোষনা না দিলে কঠোর কর্মসুচীর ঘোষনা প্রদান করেন শিক্ষক কমৃচারী বৃন্দ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য