Thakurgaon mapরাণীশংকৈল প্রতিনিধি ॥ ঠাকুরগাওয়ের রাণীশংকৈল হাসপাতালে সিভিল সার্জনের গঠিত ৩ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি ১ ডিসেম্বর আরএমও’র বিভিন্ন অনিয়মের তদন্ত  করেন।

জানাযায়, স্বাস্থ্য কেন্দ্রের আবাসিক মেডিক্যাল কর্মকর্তা ডাঃ ফিরোজ আলম অফিস সময়ে বাসায় বসে রোগী দেখেন। সাদকাসক্ত হয়ে বিভিন্ন সময় রোগীকে ধমক দিয়ে থাকেন। ইচ্ছেমত নোট লিখে সাট্রিফিকেট ব্যাবসা করে থাকেন মর্মে জরুরী বিভাগে পুলিশ খাতাটি কর্তব্যরত চিকিৎসককে নোট দিতে নিষেধ করেন।

স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ইচ্ছে মাফিক সাইকেল গ্র্যারেজ বসিয়ে মাসোয়ারা নেওয়ার অভিযোগ রয়েছে তিনার বিরুদ্ধে। অলিখিত মাসিক চুক্তি ভিত্তিতে ঔষধ কোম্পানী প্রতিনিধিদের কথা মতে রোগীদের ১০-১২ ধরনের ঔষধ লিখেন। হাসপাতালে বিভিন্ন ধরনের পরীক্ষা নিরিক্ষার ব্যবস্থা থাকলেও কমিশন ভিত্তিতে হাসপাতালের বাইরে পরীক্ষা নিরিক্ষা করতে বলেন। ফলে রাণীশংকৈল আ’লীগ যুবও ক্রীড়া সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান, যুবলীগ সহ-সভাপতি আব্দুর রশিদ, ব্যাবসায়ী দুলাল সিভিল সার্জন সহ বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দাখিল করেন।

সিভিল সার্জনের (সিএস) ঠাকঃ ১৬-৩১১৬-১(১০)স্মারকে আধুনিক সদর হাসপাতাল সিনিয়র কনসালটেন্ট ডাঃ শাহাজান নেওয়াজ কে আহবায়ক করে ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেন। তদন্ত কমিটি অভিযোগ কারী সহ স্বাস্থ্য কেন্দ্রের বিভিন্ন কর্মকর্তাদের কাছে ও লিখিত জবানবন্দি গ্রহন করেন।

এ প্রসঙ্গে আরএমও ডাঃ ফিরোজ আলম বলেন, তদন্তকারী কর্মকর্তারা যদি আমাকে বদলি করেন তা হলে আমি চলে যাব। তা ছাড়া আমি ও এখানে থাকতে চাইনা। তদন্তকারী কর্মকর্তা সিনিয়র কনসালটেন্ট ডাঃ শাহাজান নেওয়াজ বলেন, তদন্ত শেষ হলো ৭ দিনের মধ্যে তদন্ত রিপোর্ট দাখিল করা হবে এর বাইরে কিছু বলা যাবে না।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য