ফুলবাড়ীতে মুক্তিযোদ্ধার বাড়ী ভাংচুর ও গাছ কর্তনের অভিযোগফুরবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে বাড়ীর জায়গার সীমানা নিয়ে বিরোধের জের ধরে এক মুক্তিযোদ্ধার বাড়ীর প্রাচি ভাংচুর ও ফলদ গাছ কর্তনের অভিযোগ পাওয়া গেছে, ওই মুক্তিযোদ্ধার ভাই ভাতীজাদের বিরুদ্ধে।

গত বৃহস্পতিবার বিকেল ৫টায়, উপজেলার শিবনগর ইউনিয়নের রামভদ্রপুর গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায় মুক্তিযোদ্ধা লোকমান আলী বাদি হয়ে, ওই দিন রাতে ৬ জনকে বিবাদি করে ফুলবাড়ী থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগকারী মুক্তিযোদ্ধা লোকমান আলী বলেন, রামভদ্রপুর মৌজার ৪৬শতক পৈত্রিক সুত্রে পাওয়া বসত ভিটায়, সে সহ তার অন্য ৪ভাই ভাগ করে নিয়ে বসবাস করছেন, কিন্তু গত বৃহস্পতিবার বিকেলে, সে বাড়ীতে না থাকায়, তার ভাতিজা, আব্দুল মান্নানের ছেলে মামুনুর রশিদ, আব্দুল লতিফের ছেলে অহিদুল হক, মামুনুর রশিদের  স্ত্রী মোছাঃ বানু বেগম, আবুল কাশেমের ছেলে সাখওয়াৎ হোনের,ও আব্দুল লতিফের স্ত্রী আরিফা খাতুনসহ ১০ থেকে ১২ জন একত্রিত হয়ে, তার বাড়ীর সীমানা  প্রাচির ভেঙ্গে ফেলে এবং তার লাগানো ফলদ ও কাঠের ৬টি গাছ কেটে নিয়ে যায়। সে খবর পেয়ে তাদেরকে বাধা দিতে গেলে, তাকেও প্রানে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। এই ঘটনায় তিনি ৬জনকে বিবাদি করে ফুলবাড়ী থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

মুক্তিযোদ্ধা লোকমান আলীর ভাই আব্দুল লতিফ, ও তার ভাতিজা আবুল কাশেমের ছেলে মামুনুর রশিদ বলেন, মুক্তিযোদ্ধা লোকমান আলী তাদের বাড়ী থেকে বের হওয়ার রাস্তা  প্রতিবেশি সকছেদ আলীর নিকট বিক্রি করেছে, এতে তাদের বাড়ী থেকে বের হওয়ার রাস্তা বন্ধ হয়ে গেছে, তাদের বাড়ী থেকে বের হওয়ার রাস্তা তৈরী করার জন্য সীমানা প্রাচির ভেঙ্গে দেয়া হয়েছে। আব্দুল লতিফ বলেন, এই জায়গা তাদের বাব-দাদার ভিটা একার কারো নয়, তাই চলাচলের রাস্তা নির্মান করতে প্রাচির ভেঙ্গে দেয়া ছাড়া আর কোন উপায় নাই, তাই ভেঙ্গে দেয়া হয়েছে। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে মুক্তিযোদ্ধা লোকমান আলীর পরিবার ও তার প্রতিপক্ষ পরিবারের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।

এই ঘটনায় ফুলবাড়ী থানার ওসি মোকসেদ আলীর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, অভিযোগ পেয়েছি বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে এবং উভায় পক্ষকে শান্ত থাকার নির্দ্দেশ দেয়া হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য