নীলফামারীতে নির্যাতনের শিকার প্রতিবন্ধী মহিলানীলফামারীর ডোমারে বাড়ীতে আড়িপাতার অভিযোগে নির্যাতনের শিকার হয়েছে শারিরিক প্রতিবন্ধী মহিলা সহ অপর তিনজন। এ ঘটনাটি ঘটেছে গত ২০ শে নভেম্বর রাতে জেলার ডোমার উপজেলার খামার বামুনিয়া গ্রামে। গত তিনদিন ধরে হাসপাতালে যন্ত্রনায় কাতরাচ্ছে প্রতিবন্ধী রোকেয়া সহ অপর আহতরা।

জানা যায়, ওই এলাকায় গত ২০ মে নভেম্বর রাতে জনৈক প্রতিবেশীর বাড়ী থেকে নিজ বাড়ীতে ফিরছিলেন কবির উদ্দিনের মেয়ে শারিরিক প্রতিবন্ধী রোকেয়া বেগম (৫০)। এ সময় প্রতিবেশী মাদ্রাসা ছাত্র নিশান (১৫) বাড়ী ফেরার পথে শারিরিক প্রতিবন্ধী রোকেয়া বেগমকে দেখে তাদের বাড়ীতে আড়ি পেতে কথা মুনছেন।

এমন অভিযোগে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে  তাকে শারিরিক ভাবে নির্যাতন করেন নিশান, তার বোন ও এইচএসসি পরীক্ষাথী নিশি (১৭), ফুপু ও এমএ পড়ুয়া ছাত্রী রাশিদা (২২)। মারধরের এক পর্যাযে গুরুতর আহত হয়ে শারিরিক প্রতিবন্ধী রোকেয়া বেগম, তার বোন মারুফা বেগম (৫০), ভাতিজি বউ পারভীন আখতার (২৪)।

আহতেরা বর্তমানে ডোমার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এ ব্যাপারে নিশি (১৫) জানান, আমরা বাড়ীতে কথা বললেই ওরা আড়িপাতে। সেদিন নিশান হাতেনাতে রোকেয়া দাদীকে ধরেছে। ইতিপূর্বে ওরা নিজেরাই মাথা ফাটিয়ে অন্যকে ফাসানোর চেষ্টা করেছে, এখনও আমাদের করছে। এ ব্যাপারে বামুনিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ওয়াহেদুজ্জামান বুলেট জানান, শুনেছি নিশি মোবাইলে কথা বলছিল, রোকেয়া আড়ি পেতে শুনছিল, উভয় পক্ষ মারামারি হলে উভয় পক্ষ হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে, তবে রোকেয়ারা বেশী আহত হয়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য