তুরস্কে শিশু যৌন হয়রানি বিলতুরস্কে শিশু যৌন হয়রানি বিষয়ক একটি বিতর্কিত বিলের বিরুদ্ধে ইস্তাম্বুল শহরে হাজার হাজার মানুষের বিক্ষোভ অব্যাহত রয়েছে। যেসব মেয়ে শিশু যৌন হয়রানি বা নির্যাতনের শিকার হবে তাদেরকে দোষী পুরুষ ব্যক্তি বিয়ে করলে দায় থেকে মুক্তি পাবে বলে বিলটির খসড়ায় বলা হয়েছে।

এছাড়া, কোনো পুরুষ যদি কোনো রকমের জোর-জবরদস্তি ও হুমকি ছাড়া মেয়ে শিশুর সম্মতিতে যৌন সম্পর্ক প্রতিষ্ঠা করে এবং পরে কখনো আইনের মুখোমুখি হতে হয় তাহলে ওই শিশুকে বিয়ে করলে পুরুষ ব্যক্তি দায় থেকে মুক্তি পাবে।

শনিবার প্রায় ৩,০০০ মানুষ এ বিলের বিরুদ্ধে ইস্তাম্বুলের কাদিকোই চত্বরে বিক্ষোভ-সমাবেশ করেন। এ সময় তারা বিলটি জাতীয় সংসদে তোলার নিন্দা জানিয়ে এর বিরুদ্ধে স্লোগান দেন। ক্ষমতাসীন দল জাস্টিস অ্যান্ড ডেভলপমেন্ট পার্টি বা একেপি সম্প্রতি বিলটি জাতীয় সংসদে তুলেছে। এটি পাস হলে আইনে পরিণত হবে।

ইস্তাম্বুলের বিক্ষোভকারীদের হাতে ব্যানার ও ফেস্টুন দেখা যায় যাতে লেখা ছিল “ধর্ষণ কখনো বৈধ হতে পারে না”। এছাড়া, এ বিল বাতিল না করা পর্যন্ত বিক্ষোভ চলবে এবং বিলটি আইনে পরিণত হলে তা বিক্ষোভকারীরা মানবেন না বলে স্লোগান দিতে থাকেন। শিগগিরি বিলটি জাতীয় সংসদ থেকে প্রত্যাহারের জন্য বিক্ষোভকারীরা সরকারের প্রতি আহ্বান জানান। তারা বলেছেন, “আমরা কোনোভাবেই একেপি সরকারকে ধর্ষণকারীদের দেশের ভেতরে মুক্তভাবে ঘুরে বেড়নোর সুযোগ করে দিতে দেব না।”

এরদোগান সরকার বলছে, বিলটি পাস হলে শিশু নির্যাতন ও শিশু বিবাহ সংক্রান্ত জটিলতার আইনি সমাধান সহজ হবে। তবে সমালোচকরা বলছেন, এ আইন দেশে শিশু ধর্ষণকে বৈধতা দেবে। বিলটি পাস হলে তুরস্কে প্রায় ৩,০০০ শিশু নির্যাতনকারী মুক্তি পাবে বলে খবর বের হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য