IMG1দিনাজপুর নিউজ, ২৩ মার্চ: “পিছিয়ে পড়া শিশুদের কথা ভাবে না কেউ। আমরা যারা দরিদ্র পিতা-মাতার সন্তান, আমরা টিকেট কেটে মেলায় যেতে পারি না। বিনে পয়সায় পার্কে ঢুকতে পারি না। পুতুল নাচ দেখা, নাগরদোলায় দোলখেতে গেলে টাকা দিতে হয়।” আবেগ জড়িত কন্ঠে জানায় পাপড়ি খাতুন (১৫)। তার মতো মন্তব্য আরো অনেক শিশুর।

আজ বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থা ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশের দিনাজপুর আঞ্চল উন্নয়ন কর্মসূচী ও ঝুঁকিপূর্ণ শিশু উন্নয়ন প্রকল্পের সৌজন্যে দিনাজপুর শহরের কেরি মেমোরিয়াল হাইস্কুল মাঠে দুই দিনব্যাপী শিশুমেলা শুরু হয়েছে। বেলুন উড়িয়ে শিশু মেলার উদ্বোধন করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সার্বিক মোঃ হামিদুল হক, ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশের রংপুর বিভাগীয় পরিচালক ডাঃ গ্লোরিয়াস গ্রেগরী দাস।

শিশুমেলা উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন প্রধান অতিথী অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সার্বিক মোঃ হামিদুল হক, তিনি বলেন ’সরকার শিশুদের কল্যানে নানামূখী কাজ করছে। বিনে পয়সায় বই দিচ্ছে। উপবৃত্তি প্রদান করছে। সরকারের এ কাজের পাশাপাশি বিভিন্ন বেসরকারী প্রতিষ্ঠানও কাজ করছে। সরকারের পক্ষথেকে আমার প্রচেষ্ঠা থাকবে দিনাজপুর শহরকে শিশু বান্ধব হিসেবে গড়ে তোলা। সরকারের বিভিন্ন বিশেষ দিবসে যেনো শিশুরা সার্বিক বিনোদন পায় সে বিষয়টি নিশ্চিত করা।’
IMG_5781
এছাড়াও মেলা উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরো বক্ত রাখেন, ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশের রংপুর বিভাগীয় পরিচালক ডাঃ গ্লোরিয়াস গ্রেগরী দাস, প্রকল্প ব্যবস্থাপক পরিমল হেমরম, সিভিল সার্জন প্রতিনিধি ডাঃ মাসতুরা খাতুন, জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা সন্ধ্যা রাণী বাগচী, শিশু ফোরামের দলনেতা প্রতাপ। অনুষ্ঠানটি সার্বিক উপস্থাপনা করেন রতন দাস।

মেলায় শিশুদের সার্বিক বিনোদনের জন্য বিনে পয়সায় জাদুর প্রদর্শনী, দিনভর নাগরদোলায় চড়া, পুতুল নাচ, শিশুদের বিভিন্ন ধরণের খেলায় অংশগ্রহনের ব্যবস্থা করেছে মেলা কর্তৃপক্ষ।  এছাড়াও শিশুদের শিক্ষণীয় অনেক বিষয়ের উপর থাকছে প্রদর্শনী। মেলায় বিভিন্ন এনজিও ও স্থানীয় উদ্যোক্তাদের উৎপাদিত পন্যর পনেরোটি স্টল দেওয়া হয়েছে। শিশুমেলায় স্থানীয় শিশু ও জনগণের ব্যপক অংশগ্রহন পরিলক্ষিত হয়েছে।

মেলা আয়োজক কমিটির আহ্বায়ক পরিমল হেমরম জানান “ পিছিয়ে পড়া শিশুদের সার্বিক বিনোদনের জন্য ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশের এ ক্ষুদ্র প্রচেষ্ঠা একটু হলেও শিশুদের কাঙ্খিত বিনোদন পূরণের সুযোগ করে দিবে।”

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য