গোবিন্দগঞ্জে গুলিবিদ্ধ আরো এক উপজাতি মৃত্যুগাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে সাহেবগঞ্জ ইক্ষু খামার এলাকায় পুলিশ উপজাতি সংঘর্ষের ঘটনায় গুলিবিদ্ধ ম্গংল মার্ডি(৫০) নামে আরো একজন উপজাতি মারা গেছে। এ নিয়ে মৃত্যুর সংখ্যা  দাড়ালো ২। গুলিবিদ্ধ অনেকেই আশঙ্কাজনক অবস্থায় পালিয়ে পালিয়ে চিকিৎসা নিচ্ছে। এদিকে পুলিশের দায়ের করা মামলায় পুলিশ আহত ৪ উপজাতিকে গ্রেফতার করেছে। এরা হলো-  পবন সরেন, মুদলি হাসলা, মানুয়ার মার্ডি ও  মার্ডি হেমরম। এদেরকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে  চিকিৎসাধীন অবস্থায় গ্রেফতার করা হয়।

উল্লেখ্য গত রোববার সাহেবগঞ্জ ইক্ষু খামার এলাকায় উপজাতিদের উচ্ছেদের সময় পুলিশ উপজাতিদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। উচ্ছেদের সময় উপজাতিরা বাধা দিলে তাদের উপর পুলিশ নির্বিচারে গুলি চালায় উপজাতিরাও এ সময় পুলিশের উপর তীর নিক্ষেপ করে এতে উভয় পক্ষের প্রায় ৩০ জন আহত হয়। ওই দিনই গুলিবিদ্ধ শিমুল হেমরম নামে একউপজাতি মারা যায়।

সেই সাথে ৫/৬ জন উপজাতি নিখোঁজ হয়। সংঘর্ষের এক পর্যাায়ে পুলিশ উপজাতিদের বাড়ি-ঘরে আগুন লাগিয়ে দিলে শত শত বাড়ি-ঘর ভস্মীভ’ত হয়ে যায়। মারা যায় গবাদী পশু সহ অসংখ্য হাঁস-মুরগী কবুতর। সরেজমিনে আজো দেখা গেছে আদিবাসীদের মাঝে চরম আতঙ্ক। নিহত মঙ্গল মার্ডির বাড়িতে চলছে শোকের মাতম। সেখানে কথা হয় উপজাতি মহিলাদের সাথে তারা জানালেন সব কিছু হারিয়ে তারা রোববার থেকে না খেয়ে মানবেতর জীবন-যাপন করছে।

যাঁরা এখনো নিখোঁজ রয়েছে তাদের কোন খবরই তারা নিতে পারছেনা। পুলিশ পুরো এলাকা ঘিরে রেখেছে। উপজাতিদের কাউকেই সেখানে যেতে দেয়া হচ্ছে না। ওই এলাকায় এখন ভুতরে অবস্থা বিরাজ করছে। এদিকে গতকাল মঙ্গলবার  বাংলাদেশের কমিউনিষ্ট পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির প্রেসিডিয়াম সদস্যর নেতৃত্বে ১১ জনের একটি প্রতিনিধি দল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তারা বিচারবিভাগীয় তদন্তের মাধ্যমে সুষ্ঠু বিচারের দাবী করেছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য