চাল বিতরনসাখাওয়াত হোসেন সাখা, রৌমারী (কুড়িগ্রাম) থেকেঃ কুড়িগ্রামের রৌমারী উপজেলার শৌলমারী ইউনিয়নে ভিজিএফ এর চাউল বিতরনে অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। সারাদেশের ন্যায় হতদরিদ্র দুস্থ্য মানুষের মাঝে ২০ কেজি হারে ৩ মাস বিনামূল্যে চাল দেওয়ার কর্মসুচি হাতে নিয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকাল থেকে চরশৌলমারী ইউনিয়নে ১৬৪৯জন দরিদ্রের মাঝে চাল দেওয়া শুরু করে। চাল বিতরনের সময় ২০ কেজির স্থলে প্রতিজনকে ১৩ থেকে ১৪ কেজি দেওয়া হয়।এসময় উপকার ভোগীরা চাউল কম দেওয়াকে কেন্দ্র করে প্রতিবাদ করেন।

ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান তা তোয়াক্কা না করে চাউল বিতরন করতে থাকেন। অভিযোগের ভিত্তিতে সরেজমিনে গিয়ে চাল কম দেওয়ার একই চিত্র দেখা যায়।

এসময় চাল কম পেয়েছে এমন অভিযোগকারীরা জয়ফুল,রহমুদ্দিন,কাজলী, বিলকিচ, খাদিজা, রুপচান, কাজলী, মোছলেম, শুকুরজানসহ অসংখ্য মানুষ ২০ কেজি চালের স্থলে ১৩/১৪ কেজি  চাল পেয়েছেন বলে জানান।

বিষয়টি নিয়ে চেয়ারম্যান এর সাথে কথা বললে তিনি উপকার ভোগীর চাল ও দাড়িপাল্লা নিয়ে মাপতে আসেন মাপার পর সেখানে সাড়ে ১৩ কেজি চাল প্রমান হয়।

পরে এনিয়ে রৌমারী উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোঃ সাখাওয়াত হেসেন ও রৌমারী উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল্লা আল মামুনকে জানালে চাউল বিতরণ স্থগিত করে দেন। কিন্ত ইতো মধ্যে ওই চেয়ারম্যন ১৬৪৯ জন উপকার ভোগীর মধ্যে ৮২৮ জনকে চাল দিয়েছে।

বাকী রয়েছে ৮২১ জন। অভিযোগের  প্রত্যক্ষ জরিপে দেখাগেছে, প্রতি নামে গড় ৬ কেজি চাউল কম দেওয়ায় ৯৮ বস্তা চাল অতিরিক্ত থাকে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য