Rape Niejatonআরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধা থেকেঃ গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় এক কিশোরী (সীমা আকতার ১৩)কে ধর্ষণের দায়ে অশোক কুমার সরকার (৫৫)  নামে এক কলেজ শিক্ষককে গ্রেফতার করা হয়েছে। তিনি সুন্দরগঞ্জ মহিলা ডিগ্রী কলেজের সহকারি অধ্যাপক হিসেবে কর্মরত রয়েছেন।

মঙ্গলবার রাতে ওই ঘটনা ঘটে। গ্রেফতারকৃত কলেজ শিক্ষক অশোক কুমার সরকার ওই উপজেলার সোনারায় ইউনিয়নের দক্ষিণ বৈদ্যনাথ গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মুকুল চন্দ্র সরকারের ছেলে। ধর্ষিতা কিশোরী স্থানীয় করুনাময়ী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রী।

এ ঘটনায় কিশোরীর মা (ফিরোজা বেগম) বাদি হয়ে অশোক কুমারসহ ৩ জনকে আসামি করে সুন্দরগঞ্জ থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেছেন। মামলার অপর দুই আসামি হচ্ছেন অশোক কুমারের সহযোগি বাবুল মিয়া (৪৫) ও অটোরিক্সার চালক আনু মিয়া (৪০)। তারা এখন পলাতক রয়েছেন।

সোনারায় ইউনিয়নের দক্ষিণ চন্দ্র গ্রামের বাসিন্দা ধর্ষিতার বাবা (আব্দুস সামাদ) বলেন, তার মেয়েকে ফুসলিয়ে পীরগঞ্জ উপজেলার বিনোদন কেন্দ্র ‘আনন্দ নগরে’ নিয়ে যাওয়া হয়। এসময় কলেজ শিক্ষক অশোক কুমার তাকে ধর্ষণ করেন।

থানা সুত্রে জানা গেছে, গত মঙ্গলবার সকালে বিদ্যালয়ে যাওয়ার পথে ওই কিশোরীকে প্রতিবেশী আসামী বাবুল মিয়া ফুসলিয়ে মটর সাইকেলযোগে পীরগঞ্জের আনন্দ নগরে নিয়ে যায়। তার সহযোগি ছিলেন আরেক প্রতিবেশী অটোরিক্সা চালক আনু মিয়া।

পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ি তাদের পিছু পিছু কলেজ শিক্ষক অশোক কুমারও রওনা দেয়। সেখান থেকে ফেরার পথে এক আবাসিক হোটেলে নিয়ে গিয়ে অশোক কুমার কিশোরটিকে ধর্ষণ করে। পরে সেখান থেকে বাড়িতে ফিরে সময় রংপুরের পীরগঞ্জের শানেরহাট এলাকায় রাস্তার ধারে এক বাঁশঝাড়ে নিয়ে গিয়ে আবারও ধর্ষণের চেষ্টা চালায় অশোক।

এসময় মেয়েটির চিৎকারে কতিপয় ব্যক্তি ছুটে এলে সহযোগিরা পালিয়ে গেলেও অশোক কুমারকে তারা ধরে ফেলে। সেসময় টাকা পয়সা দিয়ে অশোক কুমার ওই ব্যক্তিদের ম্যানেজ করে সেখান থেকে সটকে পড়ে। এসময় মেয়েটিকে একটি অটোরিক্সায় তুলে দিয়ে তার বাড়ির উদ্দেশ্যে পাঠিয়ে দেয়া হয়।

সুন্দরগঞ্জের বামনডাঙ্গা এলাকায় আসার পর ওই অটোরিক্সা চালক মেয়েটিকে সেখানে নামিয়ে দিয়ে সরে পড়ে। এসময় মেয়েটি কান্না জুড়ে দিলে আশেপাশের লোকজন এগিয়ে এসে তার কাছে ঘটনা জানতে পেরে সুন্দরগঞ্জ থানায় খবর দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ মেয়েটিকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। সেখানে তার জবানবন্দির ভিত্তিতে নিজের বাড়ি থেকে অশোক কুমারকে গ্রেফতার করা হয়।

সুন্দরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ইসরাইল হোসেন জানান, মেয়েটির মেডিকেল পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। অপর অপরাধীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য