06 ট্রাম্প বোকা হিলারি দুর্বলযুক্তরাষ্ট্রের আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রধান দুই প্রার্থী রিপাবলিকান দলীয় ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ‘বোকা ও উন্মাদ’ এবং ডেমোক্র্যাট দলীয় হিলারি ক্লিনটনকে ‘দুর্বল ও নিস্তেজ’ বলে মন্তব্য করেছেন নির্বাচনে ভাইস প্রেসিডেন্ট পদে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা।

মঙ্গলবার ভার্জিনিয়া অঙ্গরাজ্যের লংউড বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত বিতর্কে দুই দলের দুই ভাইস প্রেসিডেন্ট প্রার্থী গর্ভপাত থেকে শুরু করে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন প্রসঙ্গে বিতর্কে মেতে উঠলেও তাদের পরস্পরের আক্রমণের কেন্দ্রবিন্দু ছিলেন ট্রাম্প ও হিলারি।

তবে ৯০ মিনিটেরও বেশি সময় ধরে চলা এ বিতর্কে ডেমোক্র্যাটিক প্রার্থী ভার্জিনিয়ার সিনেটর টিম কেইন ও রিপাবলিকান প্রার্থী ইন্ডিয়ানা অঙ্গরাজ্যের গভর্নর মাইক পেন্স, কেউই প্রতিদ্বন্দ্বীকে ধরাশায়ী করার মতো কোনো বক্তব্য দিতে পারেননি।

৮ নভেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের পরবর্তী প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। এর ৩৪ দিন আগে অনুষ্ঠিত এ বিতর্কের শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক ছিলেন সচরাচর শান্ত হিসেবে পরিচিত কেইন। তবে দুজনের বিতর্ক যখন প্রায় কথা কাটাকাটির পর্যায়ে পৌঁছে গেছে তখন পেন্সকে অনেকটা স্থির মনে হয়েছে বলে জানিয়েছেন পর্যবেক্ষকেরা।

ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট হলে তার অধীনে পরমাণু অস্ত্র নিয়ে বিপদ ঘটতে পারে বিতর্কে এমন প্রসঙ্গ চলার সময় কেইন সাবেক রিপাবলিকান দলীয় যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট রোনাল্ড রিগ্যানের প্রসঙ্গ টেনে আনেন।

তিনি বলেন, রিগ্যান একবার সতর্ক করে বলেছিলেন পরমাণু অস্ত্রের বিস্তারে ‘কিছু বোকা কিংবা উন্মাদকে ধ্বংসাত্মক পরিস্থিতি’ সৃষ্টিতে ইন্ধন যোগাতে পারে।

কেইন বলেন, রিগ্যান ট্রাম্পের মতো কারো কথা বিবেচনা করেই ওই কথা বলেছিলেন। ৫৮ বছর বয়সী সিনেটর কেইন ট্রাম্পের মানসিক স্থৈর্য্য নিয়েও সমালোচনা করেন।

সাবেক বিশ্বসুন্দরীর সঙ্গে ট্যুইটারে বাদানুবাদে জড়িয়ে ট্রাম্প নিজের ক্ষতি ডেকে এনেছেন বলে মন্তব্য করেন তিনি। এছাড়া রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে প্রশংসা করে ট্রাম্পের করা মন্তব্যেরও কড়া সমালোচনা করেন তিনি।

কেইন বলেন, ট্রাম্প একনায়কদের প্রশংসা করেন, তার ‘নিজস্ব মাউন্ট রাশমোরে’ পুতিন, কিম জং উন, সাদ্দাম হোসেন ও মুয়াম্মার গাদ্দাফির মুখ খোদিত আছে।

জবাবে ৫৭ বছর বয়সী গভর্নর পেন্স বলেন, ট্রাম্পের শক্তির কারণে পুতিন তাকে শ্রদ্ধা করবেন।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, রাশিয়ার ‘ক্ষুদ্র ও বাগাড়ম্বর প্রিয়’ নেতা বিশ্বমঞ্চে শক্তিশালী হয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের চলমান প্রশাসনের কারণে।

পুতিন সম্পর্কে ট্রাম্পের মন্তব্য কোনো অনুমোদন নয় দাবি করে তিনি বলেন, “এগুলো হিলারি ক্লিনটন ও বারাক ওবামার দুর্বল ও নিস্তেজ নেতৃত্বের বিরুদ্ধে অভিযোগ।”

বিতর্ক শেষ হওয়ার পর সিএনএন/ওআরসি-র তাৎক্ষণিক জরিপে ৪৮ শতাংশ ভোটার বিতর্কে পেন্স জয়ী হয়েছেন বলে জানিয়েছেন।

অপরদিকে কেইনকে বিজয়ী বলেছেন ৪২ শতাংশ ভোটার, জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

ভাইস প্রেসিডেন্ট প্রার্থীদের এই বিতর্ক আগামী রোববার মিজৌরি অঙ্গরাজ্যের সেন্ট লুইসে অনুষ্ঠিতব্য প্রেসিডেন্ট প্রার্থীদের পরবর্তী বিতর্কের ক্ষেত্র প্রস্তুত করেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

হিলারি ও ট্রাম্পের প্রথম বিতর্কে হিলারি বিজয়ী হয়েছিলেন বলে সংখ্যাগরিষ্ঠ ভোটার জানিয়েছিল।

বিবিসির সর্বশেষ জরিপে হিলারির জনসমর্থন ৪৯ শতাংশ আর ট্রাম্পের ৪৫ শতাংশ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য