‘আইএসের নির্দেশনাতেই’ ফ্রান্সে তিন নারীর হামলার চেষ্টাসিরিয়ার সন্ত্রাসী-জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটের (আইএস) নির্দেশনাতেই ফ্রান্সে তিন নারী জঙ্গি হামলার পরিকল্পনা করেছিল বলে ফরাসি আইন কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

বিবিসি বলছে, প্যারিসের আইন কর্মকর্তা ফ্রাঙ্কোয়িস মোলিনস জানিয়েছেন, আইএস “এই নারীদের যোদ্ধায় পরিণত করতে চেয়েছিল।”

প্যারিসে একটি গাড়ি ভর্তি গ্যাস সিলিন্ডার পাওয়ার পর জঙ্গি হামলার পরিকল্পনাকারী সন্দেহে তিনজন নারীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

প্যারিসের নটরডেম ক্যাথেড্রালের কাছে পরিত্যক্ত অবস্থায় ছিল গ্যাস সিলিন্ডার বোঝাই ওই গাড়ি।

গ্রেপ্তার করার সময় ওই নারীদের একজন এক পুলিশ কর্মকর্তাকে ছুরিকাঘাত করে। বাধ্য হয়ে পুলিশ তাকে গুলি করে এবং সে আহত হয়।

গ্রেপ্তার তিন নারীদের একজন ২৩ বছর বয়সী সারা এইচ পৃথকভাবে দুই ফরাসি জিহাদির সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলেন। দুজনেই মারা গেছেন। ওই ‍দুই জিহাদি চলতি বছর হামলা চালিয়েছিলেন।

গ্রেপ্তার অপর এক নারী ১৯ বছর বয়সী ইনেস মাদানি এক চিঠিতে আইএসের প্রতি তার আনুগত্য প্রকাশ করেছিলেন বলে জানা গেছে।

আইন কর্মকর্তা মোলিনস জানিয়েছেন, মাদানি সিরিয়া যাওয়ার জন্য বেশ কয়েক দফা চেষ্টা করেছিলেন।

গ্রেপ্তার তৃতীয় নারী ৩৯ বছর বয়সী আমল এস। তার ১৫ বছর বয়সী এক মেয়ে রয়েছে। ওই মেয়েও উগ্রপন্থায় বিশ্বাসী হয়ে উঠেছে। তাকেও কারাগারে পাঠানো হয়েছে বলে আইন কর্মকর্তা জানিয়েছেন।

গেল শনিবার সাতটি গ্যাস সিলিন্ডার বোঝাই ওই গাড়িটি পাওয়া যায়, সাতটির মধ্যে ছয়টি সিলিন্ডারই গ্যাসে পূর্ণ ছিল।

গাড়িটিতে তিনটি জার ভর্তি ডিজেলও পাওয়া গেছে। তবে সেখানে কোনও বিস্ফোরক পদার্থ পাওয়া যায়নি।

কর্মকর্তাদের আশঙ্কা, সন্ত্রাসীরা গ্যাস সিলিন্ডার বোঝাই গাড়িটি উড়িয়ে দেওয়ার পরিকল্পনা করেছিল।

টেলিভিশনে এক বিবৃতিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ক্যাজনভ বলেন, “৩৯, ২৩ ও ১৯ বছর বয়সী ওই তিন নারী চরমপন্থি ও ধর্মান্ধ। খুব সম্ভবত তাৎক্ষণিকভাবে তারা কোনো নৃশংস কাজের প্রস্তুতি নিচ্ছিল।”

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য