তিশার আলোকচ্ছটাছোটবেলা থেকেই তানজিন তিশা সংস্কৃতিমনা। মাত্র ৪-৫ বছর বয়সেই নাচের অনুশীলন শুরু করেন। কিন্তু পরিবারের কেউ সংস্কৃতির সঙ্গে যুক্ত না থাকায় এবং নিজের পড়াশোনার চাপের কারণে নাচের তালিম নেয়া বন্ধ করে দেন। কিন্তু তার মন থেকে সংস্কৃতির ছোঁয়া কিছুতেই মুছে ফেলতে পারেননি। তাই তো শখের বশে ২০১১ সাল থেকে ফ্যাশন শো ও ফটোশুটের কাজ শুরু করেন। অতঃপর ২০১২ সালে রবির বিজ্ঞাপনে প্রথম মডেল হন। অমিতাভ রেজার নির্দেশনায় এই বিজ্ঞাপনটিই তার ক্যারিয়ারের টার্নিং পয়েন্ট হিসেবে ধরা দেয়।

বিজ্ঞাপনে তিশার মায়াভরা হাসিমুখটি নাট্যনির্মাতাদের সহজেই নজর কেড়ে নিয়েছিল। তার প্রথম অভিনীত নাটক ‘ইউটার্ন’। এটি পরিচালনা করেন রেদোয়ান রনি। এই নাটকে তিশার অনবদ্য অভিনয় দর্শকদের বিমুগ্ধ করে। এরপর থেকে তিশার শোবিজে নিয়মিত যাত্রা শুরু হয়। একের পর এক জনপ্রিয় নাটকে তার অভিনয় শোবিজ অঙ্গনকে আলোকিত করে। এখনো তিনি নিয়মিত নাটকে অভিনয় করে দর্শক ও নির্মাতাদের কাছ থেকে প্রশংসা অর্জন করছেন।

ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই তিশা ধারাবাহিক নাটকে খুব কম অভিনয় করেছেন। পড়াশোনার চাপের কারণে তিনি ধারাবাহিকে অভিনয়ে আগ্রহী নন। তারপরও ভালো গল্প ও মনঃপূত চরিত্রের জন্য বেশ কটি ধারাবাহিকে অভিনয় করেছেন। বর্তমানে তিশা অভিনীত একটি ধারাবাহিক নাটক প্রচারিত হচ্ছে। এর নাম ‘থ্রি সিস্টার’। এটি পরিচালনা করেছেন আশুতোষ সুজন। এতে আরো অভিনয় করছেনথ সুজানা, টয়া, আবুল হায়াত, শামিমা তুষ্টি প্রমুখ।

এর গল্প প্রসঙ্গে তিশা বলেন, ‘দেশের ভিন্ন ভিন্ন জেলা শহর থেকে আসা তিনজন ঢাকায় একটি ফ্ল্যাটে একসঙ্গে বাস করেন। তারা ভিন্ন ভিন্ন শহর থেকে এলেও কেউ বুঝতে পারবে না, তারা আলাদা। সবাই যেন আপন বোনের মতো। এই তিনজন মেয়েকে নিয়ে ধারাবাহিকটির গল্প সামনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে।’

বর্তমানে ধারাবাহিকটি বেশ দর্শকপ্রিয়তা অর্জন করেছে। এ ছাড়া তিশা সম্প্রতি একটি নতুন ধারাবাহিকে অতিথি চরিত্রে অভিনয় করেছেন। এর নাম ‘সংসার’। এটি পরিচালনা করছেন গোলাম সোহরাব দোদুল। এতে আরো অভিনয় করেছেনথ নাদিয়া আহমেদ, অপর্ণা ঘোষ, মৌসুমী হামিদ, আবুল হায়াত প্রমুখ। একটি পরিবারের মাকে কেন্দ্র করে এই ধারাবাহিকের গল্প সামনের দিকে এগিয়ে যাবে। বর্তমানে ধারাবাহিকটি এনটিভিতে প্রচার হচ্ছে।

এদিকে তিশা ধারাবাহিকে আর অভিনয় করবেন না বলে জানিয়েছেন। কারণ ধারাবাহিকে অধিক সময় লাগে। তা ছাড়া ধারাবাহিকে নির্দিষ্ট কোনো সময় থাকে না। আর শেষের দিকে তো শিল্পীদের খুঁজে পাওয়াই যায় না। তাই তো ধারাবাহিক থেকে নিজেকে গুটিয়ে নিয়েছেন।

তবে ধারাবাহিকে অভিনয় না করলেও বিশেষ দিবসে বিশেষ নাটকের কাজ তিনি নিয়মিত করছেন। ভালোবাসা দিবস, রবীন্দ্রজয়ন্তীথ এরকম প্রতিটি বিশেষ দিবসে তার অভিনীত নাটক থাকবেই। এই তো গত ঈদে তিনি বেশ কটি বিশেষ নাটকে অভিনয় করে দর্শক ও নির্মাতাদের কাছ থেকে ভূয়সী প্রশংসা অর্জন করেছেন। ঈদের নাটকের কাজ শেষ করে বেশকিছুদিন তিনি বিরতি নিয়েছিলেন। অনেকেই মনে করেছিলেন, তিনি মিডিয়া থেকে কি বিদায় নিলেন! এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘গত ঈদে বেশকিছু বিশেষ ধারাবাহিক ও খ- নাটকের কাজসহ কয়েকটি চ্যানেলে নাচের অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছিলাম। এত বেশি কাজ করে একেবারে হাঁপিয়ে উঠেছিলাম। তাই কিছুদিন বিরতি নিয়েছিলাম। এখন আবার নিয়মিত কাজ করছি।’

এবারের ঈদুল আজহা উপলক্ষে তিশা কয়েকটি নাটকের কাজ সম্পন্ন করেছেন। এরমধ্যে একটি হচ্ছে ‘চোরাবালির প্রেম’। এ ছাড়া সজল ও মিলনের বিপরীতেও দুটি নাটকের কাজ শেষ করেছেন। অচিরেই হিমেল আশরাফের ‘মি. পাষাণ’ নামের ঈদের একটি বিশেষ নাটকের কাজ সম্পন্ন করবেন। এতে তার বিপরীতে অভিনয় করবেন সালাউদ্দিন লাভলু। এই নাটকটি নিয়ে তিশা অনেক আশবাদী বলে জানিয়েছেন।

এবারের ঈদের নাটকে অভিনয় প্রসঙ্গে তিশা বলেন, ‘এবারের ঈদে খুব বেশি কাজ করছি না। কারণ এবার আমার শরীরের অবস্থা খুব একটা ভালো নয়। গত কয়েকদিন ধরে অসুস্থ। তা ছাড়া সব ধরনের গল্পের নাটকে অভিনয় করারও ইচ্ছা নেই। তবে এবারের ঈদে যে কয়টি নাটকে অভিনয় করছি, সবই দর্শকের ভালো লাগবে।’

তানজিন তিশা গত ঈদের পর পরই একসঙ্গে তিনটি বিজ্ঞাপনে মডেল হন। এগুলো হচ্ছেথ ‘তিব্বত গ্লিসারিন’, ‘নিম ফেসওয়াশ’ ও ‘প্রমি চাটনি’। এগুলো নির্মাণ করেছেন কলকাতার বিজ্ঞাপন নির্মাতা সনক মিত্র। এ প্রসঙ্গে তিশা বলেন, ‘সবসময়ই আমি ভালো ভালো প্রোডাক্টে মডেল হিসেবে কাজ করি। সেই ধারাবাহিকতায় এই তিনটি বিজ্ঞাপনে কাজ করেছি। সনক দা নির্মাতা হিসেবে খুবই ভালো। তিনি অনেক যতেœর সঙ্গে বিজ্ঞাপনগুলো নির্মাণ করেছেন। প্রতিটি বিজ্ঞাপনই খুব ভালো হয়েছে। ইতোমধ্যে দুটি বিজ্ঞাপনের প্রচার শুরু হয়েছে। অচিরেই আরেকটি প্রচার শুরু হবে।’

ছোটপর্দায় নিয়মিত অভিনয় করলেও রুপালিপর্দায় তিশার এখনো অভিষেক হয়নি। কিন্তু শোবিজে তার অভিনয় প্রশংসিত হওয়ার পর থেকেই চলচ্চিত্রে অভিনয়ের গুঞ্জন শোনা যাচ্ছিল। এদিকে বেশকিছু দিন থেকে তিনি শোবিজ থেকে আলাদা ছিলেন। তাই শোবিজের অনেকেই ধারণা করেছিলেন চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য তিনি নিজেকে প্রস্তুত করছেন। এ প্রসঙ্গে তিশা বলেন, ‘বিষয়টি শতভাগ সঠিক নয়। তবে চলচ্চিত্রে কাজ করব। একটি প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে বেশ কয়েকবার মিটিং করেছি। তবে এখনই এ বিষয়ে নিশ্চিত কিছু বলা ঠিক হবে না। আগামী মাসে এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানাতে পারব। তা ছাড়া চলচ্চিত্রে কাজের জন্য এরইমধ্যে বেশ কয়েকবার ভারতে গিয়েছিলাম। তবে এটুকু বলতে পারি, কাজটি যৌথ প্রযোজনার হবে। আর আমি যৌথ প্রযোজনার ছবিতে অভিনয়ের মধ্য দিয়েই চলচ্চিত্রে নাম লেখাতে চাই।’

এ ছাড়া তিশা কিছু দিন আগে জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী ইমরানের একটি গানে মডেল হয়েছিলেন। আর এই গানটি ইউটিউবে এক কোটিরও বেশি ভিউ হয়েছিল। এরপর তিশা সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন মিউজিক ভিডিওর কাজ আর করবেন না। কিন্তু দর্শকদের অনুরোধে তিনি সম্প্রতি অনন্য মামুনের নির্দেশনায় হাবিবের একটি গানে মডেল হয়েছেন। এই গানে তার সঙ্গে মডেল হন হাবিব নিজেই। এভাবেই তিশা শোবিজে তার আলো ছড়িয়ে যাচ্ছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য