নবাবগঞ্জে আমন ধানের সম্পূরক সেচ দিতে শ্যালো মেশিন বরিংনিজস্ব প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের নবাবগঞ্জে চলতি আমন রোপা মৌসুমে আকাশের বৃষ্টি পর্যাপ্ত পরিমাণ না হওয়ায় আমণ রোপা ফসলের মাঠ ফেটে গেছে। ফসল রক্ষার্থে ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক শ্রেনীর কৃষকেরা সম্পূরক অতিরিক্ত সেচ দিতে কোমর বেঁধে মাঠে নেমেছে। কোথাও কোথাও উঁচু জমিতে নতুন করে সেচ দেয়ার জন্য শ্যালো মেশিন বরিং অব্যাহত রয়েছে।

উৎপাদনের সাথে জড়িত থাকা কৃষকেরা জানা- আমন ধানে আকাশের পানিতেই উৎপাদন হয়। কিন্তু এ বছর শুরু থেকেই এ এলাকায় পর্যাপ্ত পরিমাণ বৃষ্টিপাত না হওয়ায় কৃষকেরা বিদ্যুৎ ও ডিজেল চালিত গভীর-অগভীর সেচ যন্ত্র সহায়তায় সেচ দিচ্ছে।

শেষ পর্যন্ত বৃষ্টিপাত না হলে অতিরিক্ত সেচ দিয়েই ফসল ঘরে উঠাতে হবে। উপজেলার দাউদপুর ইউনিয়নের কৃষক মহাদ্দেস আলী, কবির হোসেন, গোলাপগঞ্জ ইউনিয়নের শওগুনখোলা গ্রামের লোকমান হাকিম, হারুনুর রশিদ এরা জানান- উঁচু শ্রেনীর জমিতে সেচের বেশি প্রয়োজন হচ্ছে।

অতিরিক্ত সেচ খরচ বহন করতে হিমসিক খাচ্ছে তারা। সেচ সংক্রান্ত তথ্য জানার জন্য উপজেলার ৮নং মাহমুদপুর ইউনিয়নের দারিয়া এলাকায় গেলে কৃষক মামুনুর রশীদ জানায়- শ্যালো মেশিন বরিং করে সেচ দেয়ার কাজ করছেন।

এ বিষয়ে নবাবগঞ্জ উপজেলা বরেন্দ্র বহুমূখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ’এর সহকারী প্রকৌশলী মোঃ আজমাল হোসেন জানান- আমন রোপা মৌসুমে তাদের ১’শ গভীর নলকূপ সেচ দেয়ার জন্য চালু করা হয়েছে। এ বিষয়ে নবাবগঞ্জ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আবু রেজা মোঃ আসাদুজ্জামান জানান- নীচু জমিগুলোতে কোন সমস্যা হচ্ছে না। তবে, উঁচু শ্রেনীর জমিতে সম্পূরক সেচ দেয়ার জন্য পরামর্শ দেয়া হচ্ছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য