Chirirচিরিরবন্দর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি: দিনাজপুরের চিরিরবন্দর উপজেলার ব্যাঙডোব উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে গত ১৯ মার্চ বুধবার আইনের সঠিক বাস্তবায়নই পারে বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ করতে এ প্রতিপাদ্যের ওপর এক বির্তক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শামসুল আলম। বিচারক হিসেবে ছিলেন সহকারী শিক্ষক ওয়ালিউল্যাহ, শফিকুল ইসলাম, আসাদুজ্জামান এবং শিশু দলের সদস্য খাদেমুল ইসলাম অনুষ্ঠানটি মর্ডারেট করেন। প্রতিপাদ্যের পক্ষে শাপলা ও বিপক্ষে গোলাপ দল অংশগ্রহণ করে। প্রতিযোগিতায় গোলাপ দল বিজয়ী হয় এবং শ্রেষ্ঠ বক্তা নির্বাচিত হন ১০ম শ্রেণির ছাত্রী রেশমা খাতুন। এ সময় এসইউপিকে’র কমিউনিটি ফ্যাসিলিটেটর ললিত চন্দ্র রায়, শিক্ষক-শিক্ষিকাসহ স্থানীয় গন্যমাণ্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

একইদিনে একই প্রতিপাদ্যের ওপর হাসিমপুর মোল্লাপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে এক বির্তক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মকবুল হোসেন শাহ্। বিচারক হিসেবে ছিলেন সহকারী শিক্ষক ময়েনউদ্দিন, খাদিজা বেগম, তপন কুমার সরকার এবং উপস্থাপনা ও সঞ্চলনা করেন আব্দুল গফফার ও মাহাতাবউদ্দিন। প্রতিপাদ্যের পক্ষে  হাসিমপুর মোল্লাপাড়া উচ্চ বিদ্যালয় ও বিপক্ষে হাসিমপুর উচ্চ বিদ্যালয় অংশগ্রহণ করে। প্রতিযোগিতায় হাসিমপুর উচ্চ বিদ্যালয় বিজয়ী এবং শ্রেষ্ঠ বক্তা নির্বাচিত হন জিসাত রেহানা। অনুষ্ঠানে এসইউপিকে’র কমিউনিটি ফ্যাসিলিটেটর অজিত কুমার রায়, তুলশী চক্রবর্তী, দুলাল চন্দ্র রায়, শিক্ষক-শিক্ষিকাসহ স্থানীয় গন্যমাণ্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

অপরদিকে, গত ১৮ মার্চ উপজেলার নওখৈর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে একই প্রতিপাদ্যের ওপর এক বির্তক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক হোসনে আরা বেগম। বিচারক হিসেবে ছিলেন সহকারী শিক্ষক মো. ময়েনউদ্দিন, মো. মাহাবুবার রহমান, ইয়াকুব আলী। অনুষ্ঠানটি মর্ডারেট করেন হোসনে আরা বেগম। প্রতিপাদ্যের পক্ষে  হরিশ্চন্দ্রপুর উচ্চ বিদ্যালয় ও বিপক্ষে নওখৈর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় অংশগ্রহণ করে। প্রতিযোগিতায় নওখৈর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় বিজয়ী এবং শ্রেষ্ঠ বক্তা নির্বাচিত হন ১০ম শ্রেণির ছাত্রী হাসনা হেনা হাসি। অনুষ্ঠানে এসইউপিকে’র কমিউনিটি ফ্যাসিলিটেটর দুলাল চন্দ্র রায়, তুলশী চক্রবর্তী, শিক্ষক-শিক্ষিকাসহ স্থানীয় গন্যমাণ্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। এ সব প্রতিযোগিতার আয়োজন করেন বিদ্যালয় ও ইউনিয়ন পরিষদ কর্তৃপক্ষ এবং সার্বিক সহযোগিতা করেন সমাজ উন্নয়ন প্রশিক্ষণ কেন্দ্র (এসইউপিকে) ও প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ’র পার্টনারশীপ প্রকল্প। এসব অনুষ্ঠানে বির্তক প্রতিযোগিতা শেষে বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে গণসচেতনা সৃষ্টিতে আমাদের ময়না নামে নাটক মঞ্চায়িত হয়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য