Kurigram Map1সাখাওয়াত হোসেন সাখা,রৌমারী (কুড়িগ্রাম) থেকেঃ রৌমারীতে ভিজিএফ’র চাল চুরির তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে গড়িমশি করছেন উপজেলা তদন্ত কর্মকর্তা (কৃষি কর্মকর্তা) আজিজল হক। প্রতিবেদন জমা না দেয়ার বিষয়টি নিয়ে বুধবার (১০আগস্ট) কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসক খান মো. নুরুল আমিনকে অভিযোগ করেছেন দাঁতভাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের মহিলা সদস্য কাঞ্চন মালা। জেলা প্রশাসক বিষয়টি দেখবেন বলে আশ্বাস দিয়েছেন।

গত ঈদুল ফিতরের আগে দুস্থ মহিলাদের ২০ কেজি করে ভিজিএফ’র চাল বিতরণ করা হয়। কিন্তু কাঞ্চন মালার ও নুর জাহানের এলাকার ১৭০জন দুস্থের ১০১.৯৪ মে.টন চাল ওই পরিষদের চেয়ারম্যান শামছুল হক আত্মসাত করেছেন মর্মে ইউএনও বরাবর অভিযোগ করেন কাঞ্চন মালা। পরে ঘটনাটির তদন্তের জন্য উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আজিজল হককে দতন্তের দায়িত্ব দেন। গত ২২ জুলাই অভিযোগটি তদন্তের জন্য দাঁতভাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদে যান এবং ইউপি চেয়ারম্যান, সকল ইউপি সদস্য ও শত শত মানুষের উপস্থিতিতে বিষয়টির দতন্ত করেন। এতে প্রাথমিকভাবে অভিযোগের সত্যতা পান বলে ওইদিন তদন্ত কর্মকর্তা আজিজ হক সাংবাদিকদের জানান। কিন্তু অজানা কারণে দীর্ঘ ২০ দিনেও তদন্ত প্রতিবেদনটি ইউএনও বারাবরে জমা দেন নি।

এদিকে কুড়িগ্রামের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট (এডিএম) আব্দুল লতিফ খান বন্যা কবলিতদের ত্রাণ দিতে রৌমারীতে এসে ইউপি সদস্য কাঞ্চন মালাকে ইউএনও কার্যালয়ে ডেকে নিয়ে অভিযোগটি তুলে নিতে বলেন। এমনকি অভিযোগ তুলে না নিলে আগামীতে কাঞ্চন মালাকে কোন প্রকার বরাদ্দ দেয়া হবে না বলে হুমকি দেন। পরে জানা যায়, জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আব্দুল লতিফ খান অভিযুক্ত ইউপি চেয়ারম্যান শামছুল হকের বিয়াই। কাঞ্চন মালা সাংবাদিকদের অভিযোগ করে বলেন, এ কারণে হয়তো তদন্ত প্রতিবেদনটি জমা দিতে গড়িমশি করছেন তদন্ত কর্মকর্তা আজিজল হক।

তবে তার বিরদ্ধে আনীত অভিযোগ অস্বীকার করে তদন্ত কর্মকর্তা আজিজল হক বলেন, বন্যা ও পরপর কয়েকজন কর্মকর্তা (তার বিভাগের) রৌমারীতে আসায় তিনি প্রতিবেদনটি তৈরি করতে সময় পান নি। আগামী দু’এক দিনের মধ্যে জমা দেবেন বলে জানান।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য