উড়ে বেড়াচ্ছেন পিয়াপাখির মতো ডানা নেই পিয়ার। তাতে কি। ইচ্ছের একজোড়া রঙিন পাখা যে তাকে জড়িয়ে আছে সযতনে। পিয়া শোবিজকন্যা। গ্ল্যামারাস। টিভি আর চলচ্চিত্র- দুই মাধ্যমেই বিচরণ তার দাপটের সঙ্গে। বিজ্ঞাপনের মডেল, উপস্থাপক, অভিনেত্রী। নাটকের পাশাপাশি চলচ্চিত্রের রুপালি দুনিয়ায়ও পারফরম্যান্স নৈপুণ্যে মুগ্ধতার আলো ছড়াচ্ছেন। শোবিজ জগতে বসবাস মানেই পত্রপত্রিকা আর ম্যাগাজিনে সরব উপস্থিতি। পিয়ার ক্ষেত্রেও ব্যত্যয় ঘটে না এমনটার। দেশ-বিদেশের বিভিন্ন পত্রপত্রিকা আর ম্যাগাজিনে হরহামেশাই তাকে নিয়ে রিপোর্ট বা প্রতিবেদন প্রকাশ হয়। সেসঙ্গে ছাপা হয় দুর্দান্ত সব ছবিও।

এবার সে ধারাবাহিকতায় নানান ভঙিমার ছবিসহ পিয়ার ঠাঁই মিলছে বিশ্বব্যাপী শোবিজ তারকাদের কাছে কাক্সিক্ষত ম্যাগাজিন ‘ভোগ’-এর প্রচ্ছদে। আর এ কারণেই ইচ্ছের পাখা মেলে পিয়া এখন উড়ছেন আনন্দের আকাশে। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমি সবসময় চেয়েছি দেশের গ-ি পেরিয়ে কাজ করতে। আমার জন্য এটি খুবই কঠিন হয়ে যায়। কারণ, আগে পড়াশোনা নিয়ে খুব ব্যস্ত সময় কেটেছে। সম্প্রতি ভোগের প্রচ্ছদ মডেল হিসেবে কাজ করলাম। মুম্বইয়ের মেহবুব স্টুডিওতে এর শুট হয়েছে।

মূলত ম্যাগাজিনটির নবম প্রতিষ্ঠাবাষির্কী উপলক্ষে ছিল এ আয়োজন। এর দায়িত্বে ছিলেন ভোগের ফ্যাশন এডিটর এনাইটা অ্যাদাজানিয়া। ক্যামেরায় ছিলেন ভারত শিখা আর হেয়ার স্টাইলে ছিলেন প্যারিসের প্রখ্যাত ফ্যাশন আইকন সাইরিলে। কাজের পাশাপাশি আইন বিষয়ে পড়াশোনা করেছেন পিয়া। লন্ডন কলেজ অব লিগ্যাল স্ট্যাডিস (এলসিএলএস) থেকে শেষ বর্ষের পরীক্ষা দিয়েছেন এ পর্দাকন্যা। মডেলিং ও অভিনয়ের পাশাপাশি আইন পেশায়ও ক্যারিয়ার গড়তে চান তিনি।

ইতিমধ্যে ব্রিস্টল ইউনিভার্সিটি থেকে বার এট ল পড়তে অফার লেটারও পেয়ে গেছেন। বর্তমানে দেশের অন্যতম আইনজীবী ও সংবিধান প্রণেতা ড. কামাল হোসেনের তত্ত্বাবধানে ইন্টার্নি করছেন পিয়া। রেদওয়ান রনির ‘চোরাবালি’ ছবিতে অভিনয় দিয়ে চলচ্চিত্রে কাজ শুরু করে এরই মধ্যে আরো বেশকিছু ছবিতে কাজ করেছেন এই অভিনেত্রী। তার অভিনীত ছবিগুলোর মধ্যে রয়েছে ‘স্টোরি অব সামারা’, ‘গ্যাংস্টার রিটনার্স’। সবশেষ অপূর্বর বিপরীতে ‘গ্যাংস্টার রিটানর্স’ ছবিটি মুক্তি পায় তার। খুলনায় জন্মগ্রহণ করা পিয়ার মডেলিংয়ে যাত্রা শুরু ২০০৮ সালে। তবে ২০০৭ সালের মিস বাংলাদেশ প্রতিযোগিতায় বিজয়ী হওয়াটাই ছিল তার ক্যারিয়ারের সূচনা।

বর্তমানে তার উপস্থাপনায় জিটিভিতে (গাজী টিভি) ভ্রমণবিষয়ক একটি অনুষ্ঠান বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছে। এ অনুষ্ঠানের নাম ‘হলিডে প্ল্যানার’। এ অনুষ্ঠানটি নিয়ে পিয়া বলেন, সামনে নেপাল ও ইউরোপের বিভিন্ন দেশে যাওয়ার কথা রয়েছে। এ ধরনের অনুষ্ঠান আমি অনেক উপভোগ করি। এ অনুষ্ঠান প্রচারের পর থেকে বেশ সাড়া পেয়েছি। এছাড়া সম্প্রতি ‘ছিটমহল’ নামে একটি ছবিতেও কাজ করেছেন তিনি। এ ছবির কাজও এরই মধ্যে শেষ হয়েছে। এখানে আরো বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন শিমুল খান ও মৌসুমী হামিদ। এটি পরিচালনা করেছেন এইচ আর হাবিব। পিয়া বলেন, এ ছবির কাজটি ভালো হয়েছে। ভারত ও বাংলাদেশের ছিটমহলের নাগরিকদের জীবনপ্রবাহের টানাপড়েন নিয়ে তৈরি হচ্ছে এটি।

এখানে আমাকে হিন্দু বিধবা একটি মেয়ের চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা যাবে। পঞ্চগড় জেলার বোদা থানার মাড়েয়া ছিটমহলে এর দৃশ্যধারণের কাজ হয়েছে। ছবিটির সহ-প্রযোজনায় আছে শিমুল খান মোশন পিকচার্স। কাজ, পড়াশোনার পাশাপাশি ধীরে ধীরে তার লক্ষ্যে এগিয়ে যাচ্ছেন পিয়া। পেশাদার শিল্পী হিসেবে শোবিজে নিয়মিত কাজ করে যেতে চান। ছোট বা বড় যেকোনো ভালো কাজের জন্য তিনি অপেক্ষা করেন। পিয়া বলেন, এখন নিয়মিত অফিসও করতে হয়। অফিসের বাইরে ছুটি নিয়ে কাজ করতে হয়। তাই একটু কঠিন হয়ে যাচ্ছে। তবে ভালো কাজে কখনও আপত্তি নেই আমার। একজন অভিনয় শিল্পী হিসেবে নিজের ক্যারিয়ারে আরো ভালো কিছু কাজ যোগ করতে চাই।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য