সুব্রমনিয়াম স্বামীকে নিয়ে চরম অস্বস্তিতে বিজেপিভারতে বিজেপি’র সিনিয়র নেতা ও সংসদ সদস্য সুব্রমনিয়াম স্বামী দেশের মুখ্য অর্থনৈতিক উপদেষ্টাকে বরখাস্তের দাবি তোলায় চরম অস্বস্তিতে পড়েছে ক্ষমতাসীন বিজেপি।

সুব্রমনিয়াম স্বামী এরআগে রিজার্ভ ব্যাংকের গভর্নর রঘুরাম রাজনকে তার পদ থেকে সরানোর জন্য কয়েকমাস ধরে একনাগাড়ে প্রচার চালান। অবশেষে একপ্রকার বাধ্য হয়েই রঘুরাম ঘোষণা করেছেন তিনি দ্বিতীয়বারের জন্য আর ওই পদে থাকছেন না। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি কিংবা অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি তাকে দ্বিতীয়বারের জন্য গভর্নর করার মতো সাহস দেখাতে পারেননি যা আদতে সুব্রমনিয়াম স্বামীর কাছে ‘বিরাট জয়’ বলেই মনে করা হচ্ছে।

রঘুরাম রাজনের পরে দেশের মুখ্য অর্থনৈতিক উপদেষ্টা অরবিন্দ সুব্রহ্মণ্যমকে রিজার্ভ ব্যাংকের গভর্নর হিসেবে নিযুক্ত করা হতে পারে বলে সরকারি মহলে জল্পনা শুরু হয়েছিল। যদিও গতকাল এবং আজও অরবিন্দ যাতে ওই পদে যেতে না পারেন সেজন্য স্বামী তার বিরুদ্ধে টুইটার আক্রমণ চালিয়েছেন। অরবিন্দ সুব্রহ্মণ্যমকে অবিলম্বে বরখাস্ত করতে হবে বলে দাবি তোলেন তিনি।

স্বামীর অভিযোগ, অরবিন্দ আমেরিকার গ্রিন কার্ড হোল্ডার। ২০১৩ সালে তিনি ওষুধ শিল্পের ক্ষেত্রে ইনটেলেকচুয়াল প্রপ্রার্টি রাইটস নিয়ে ভারতকে উচিত শিক্ষা দিতে আমেরিকা প্রশাসনকে প্রস্তাব দিয়েছিলেন। সেই সময় অরবিন্দ আমেরিকার অর্থনীতি বাঁচাতে ভারতের অর্থনীতিকে দুর্বল করার জন্য রিপোর্ট তৈরি করে মার্কিন প্রশাসনকে দেয়ায় আমেরিকাও তার উপর খুব খুশি।

সুব্রমনিয়াম স্বামীর এ রকম তৎপরতায় কার্যত বিড়ম্বনায় পড়েছে বিজেপি। এরফলে বুধবার অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলিকে সাংবাদ সম্মেলন করে বলতে হয়, ‘কিছু লোক নিজেদের সবজান্তা ভাবেন এবং কখন কোথায় এবং কার সম্পর্কে কী বলতে হয় তা জানেন না। অরবিন্দকে সরানোর প্রশ্নই নেই।’

তিনি আরো বলেন, ‘রাজনৈতিক নেতাদের একটা শৃঙ্খলা মেনে চলতে হয়। সেটা লঙ্ঘন করলে তার পরিণামও সঠিক হয় না।’ অরবিন্দ সুব্রহ্মণ্যমকে নিয়ে কোনো সমস্যা নেই বলে সরকারের পক্ষ থেকে দাবি করা হলেও বিজেপি নেতা সুব্রমনিয়াম স্বামী কিন্তু থেমে নেই।

অরুণ জেটলির হুঁশিয়ারি সত্ত্বেও সুব্রমনিয়াম স্বামী আজ (বৃহস্পতিবার) বলেন, যদি কেন্দ্রীয় বিজেপি সরকার অরবিন্দ সুব্রহ্মণ্যম সম্পর্কে সব জানা সত্ত্বেও বলে তিনি আমাদের সম্পদ, তাহলে আমি আমার দাবি প্রত্যাহার করে নেব এবং সত্য প্রমাণ করার জন্য অপেক্ষায় থাকব। এসবের ফলে ক্ষমতাসীন বিজেপি স্বামীকে নিয়ে চরম বিড়ম্বনায় পড়েছে এবং দলীয় শৃঙ্খলা নিয়েও প্রশ্ন দেখা দিয়েছে বলে বিশ্লেষকরা মনে করছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য