arrestনীলফামারীতে বাবার অভিযোগের ভিত্তিতে এক মাদকাসক্ত ছেলেকে এক মাস কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ ঘটনাটি ঘটে জেলার মাদক, বাল্য বিয়ে ও যৌতুকমুক্ত সদর উপজেলায়। সাজাপ্রাপ্ত ছেলে হলেন, নুর আলম (২৩)। সে সদর উপজেলার পঞ্চপুকুর ইউনিয়নের আরাজি মানুষমারা গ্রামের টুলু মামুদের ছেলে।

গতকাল রোববার রাতে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক সাবেত আলী এ দণ্ডাদেশ দেন। জানা যায়, গত ২৯ মে বিশাল গণসমাবেশের মধ্যে দিয়ে নীলফামারী সদর উপজেলাকে নীলফামারী সদর আসনের সংসদ সদস্য ও সংস্কৃতি মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নুর বাল্য বিয়ে, যৌতুক ও মাদকমুক্ত ঘোষনা করেন।

এ ঘোষনার পর জনমনে নানা প্রশ্নের সৃষ্টি হয়েছে। প্রশ্ন উঠেছে আদৌও কি এটা সম্ভব। যার প্রমান পাওয়া গেল ১০ দিনের মাথায় পিতার অবিযোগে মাদকাসক্ত ছেলেকে পুলিশে দেয়ার ঘটনায়। প্রশ্ন উঠেছে। এভাবে ঢাকঢোল পিটিয়ে কিভাবে বাল্য বিয়ে, যৌতুক ও মাদকমুক্ত করা যায়।

হয়তো দাতা সংস্থার অর্থ লুটপাট, এনজিওদের কল্পকাহিনী প্রতিষ্ঠা আর সাময়িক বাহবার এটা একটি নুতন কৌশল বলে এলাকাবাসী মনে করছেন। অভিযোগ উঠেছে জেলার সদর উপজেলার বিভিন্নস্থানে এখনো মাদকের আখড়া জোরেসোরে চলছে। দেদারছে বিক্রি হচ্ছে মদ. বাংলা, গাজা, হেরোইন, ইয়াবা সহ নানান জাতের মাদক।

আর যুব ও তরুন সমাজ মাদকের দিকে ঝুকছে। বাবার অভিযোগে দণ্ড প্রাপ্ত নুর আলমের ব্যাপারে পুলিশ জানায়, নেশার টাকার জন্য মাদকাসক্ত নুর আলম পরিবারের সবার ওপর অত্যাচার চালাতো। এমনকি তার বাবার ওপরও নির্যাতন করতো।

বাধ্য হয়ে বাবা টুলু মামুদ ইউএনও বরাবর লিখিত অভিযোগ করেন। তার অভিযোগের ভিত্তিতে গতকাল রোববার পুলিশ মাদকাসক্ত নুর আলমকে আটক করে ভ্রাম্যমাণ আদালতে হাজির করে। এ সময় আদালতের বিচারক তাকে এক মাসের কারাদণ্ড দেন। সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাহাজাহান পাশা বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য