লাশ Lasচিরিরবন্দর (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের চিরিরবন্দরে ডাক্তারের ভুল চিকিৎসায় নাসরিন নামে পঞ্চম শ্রেণির এক ছাত্রীর মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছে।

এলাকাবাসী সুত্রে জানা গেছে, গত শুক্রবার বিকালে উপজেলার নশরতপুর গ্রামের বাকালী পাড়ার নজরুল ইসলামের শিশু কন্যা ও স্থানীয় চাইল্ড কেয়ার স্কুলের পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রাী নাসরিন আক্তার (১৩) হঠাৎ হার্নিয়ার ব্যথায় আক্রান্ত হলে বাড়ীর লোকজন তাকে পার্শ্ববতী পলিটেক ক্লিনিকে ভর্তি করালে।

ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ তাকে অপারেশনের পরামর্শ দেয়। রাত ৮টায় খানসামা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা  আব্দুল্লাহ আল মাফি অপারেশন করার পর সে মারা যায়। অপারেশন শেষে জ্ঞান ফিরতে সময় লাগবে বলে পরিবারের লোকজনের রোগীর কাছে যাওয়া নিষেধ করে।

কয়েক ঘন্টা অতিবাহিত হওয়ার পরও রোগীর জ্ঞান না ফেরায় সন্দেহের সৃষ্টি হয়। পরবর্তীতে পরিবারের লোকজন রোগীর কাছে গিয়ে মৃত্যৃ দেখে চিৎকার করলে এলাকাবাসী তৎক্ষনাত দিনাজপুর জিয়া হার্ড ফাউন্ডেশনে পৌছালে কর্তব্যরত ডাক্তার মৃত বলে ঘোষনা করে।

খবর চারদিক ছড়িয়ে পড়লে ক্ষুব্ধ জনতা  ক্লিনিক ভাংচুরের চেষ্টা চালায়। অবস্থা বেগতিক দেখে কর্তৃপক্ষ   ক্লিনিক বন্ধ করে পালিয়ে যায়। এ ব্যাপারে ডাঃ আব্দুল্লাহ আল মাফি’র সাথে কথা হলে তিনি ভুল স্বীকার করে বলেন, দূর্ঘটনা বশতঃ অনেক সময়  রোগীর মৃত্যু হতেই পারে।

পলিটেক ক্লিনিকের পরিচালক রেজাউল করিম এবং দেবেশ চন্দ্র রায়ের সাথে কথা হলে তারা বলেন, এটা একটা দূর্ঘনা। তার জন্য আমরা দুঃখিত।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য