বিজ্ঞাপনে আপত্তি নেই মিমেরঅভিনয়ের সঙ্গে অনেকটা সময় ধরেই আছেন লাক্স-চ্যানেল আই সুপারস্টার খ্যাত অভিনেত্রী বিদ্যা সিনহা মিম। টিভি নাটক ও বিজ্ঞাপনে তুমুল দর্শক সাড়া জাগিয়ে এখন নিয়মিত হয়েছেন চলচ্চিত্রে। আর বড়পর্দার দর্শক ঘিরেই তার এখন যত স্বপ্ন। এরই মধ্যে বেশ কয়েকটি ছবির মাধ্যমে নিজেকে আলোচনায়ও নিয়ে এসেছেন মিম। টিভি নাটক ছেড়েছেন প্রায় দুই বছর।

এখন কালেভদ্রে দুই একটা নাটকে দেখা যায় মিমকে। সমপ্রতি মিজানুর রহমান আরিয়ানের পরিচালনায় ‘সেই মেয়েটা’ শিরোনামের একটি নাটকে অভিনয় করেছেন তিনি। সংগীত তারকা ও অভিনেতা তাহসানের বিপরীতে এ নাটকে তাকে একজন চিকিৎসকের ভূমিকায় দেখা যাবে। এটি আসন্ন ঈদ উপলক্ষে করা।

তার মানে এই নয় যে, নাটকে নিয়মিত হয়ে যাচ্ছেন মিম। তার ভাষ্য, দর্শকের চাওয়ায় একটি নাটকে কাজ করেছি। আমি ফিল্ম নিয়েই এখন বেশি ভাবছি। এ জায়গাটিতে নিজেকে ভালো একটি অবস্থানে নিয়ে যেতে চাই। আর তাই প্রতিনিয়তই নিজেকে ভেঙে নতুন করে তৈরি করার চেষ্টা করছি। ঢাকাই ছবিতে নিজেকে অন্য উচ্চতায় নিয়ে যাওয়াই আমার টার্গেট।

এদিকে নাটকে অভিনয় ছাড়লেও বিজ্ঞাপনের কাজ ছাড়েননি মিম। নির্মাতা ও সহশিল্পী, সেই সঙ্গে ভালো লাগার মতো কোনো পণ্য পেলেই নিয়মিত বিজ্ঞাপনে কাজ করার জন্য প্রস্তুত তিনি। চলচ্চিত্রের পাশাপাশি এ জায়গাটিতে সরব থাকতে তার কোনো আপত্তি নেই বলেও জানান তিনি।

এ প্রসঙ্গে মিম বলেন, ভালো পণ্য, নির্মাতা ও সহশিল্পী- সবকিছুর সমন্বয় হলে আমি ফিল্মের পাশাপাশি বিজ্ঞাপনে নিয়মিত থাকবো।নিজেকে উপস্থাপনের জন্য এটি অন্যতম মাধ্যম বলেই আমার বিশ্বাস। আর বিজ্ঞাপনে কাজ করতে আমার নিজেরই ভালো লাগে। তাই ব্যাটে বলে মিলে গেলে মিডিয়ার এ জায়গাটিতে সরব থাকতে আমার কোনো আপত্তি নেই। টিভি পর্দার দর্শক নাটকে না দেখলেও বিজ্ঞাপনে আমাকে দেখবেন এমন অঙ্গীকার করতেই পারি।

সম্প্রতি সামির আহমেদের নির্দেশনায় একটি জনসচেতনতামূলক বিজ্ঞাপনের কাজ শেষ করেছেন মিম। এটি এখনও প্রচারে আসেনি। এছাড়া আদনান আল রাজীবের নির্দেশনায় গ্রামীণফোনের মডেলও হয়েছেন তিনি। দুটি বিজ্ঞাপনেই তার সহশিল্পী হিসেবে আছেন তাহসান। বর্তমানে মিম অভিনীত ‘ভালোবাসা এমনই হয়’ ছবিটি মুক্তির অপেক্ষায় আছে। এটি পরিচালনা করেছেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী তানিয়া আহমেদ। এছাড়া তারেক শিকদারের পরিচালনায় ‘দাগ’ ছবির বেশিরভাগ শুটিং শেষ করেছেন মিম।

পাশাপাশি অনন্য মামুনের পরিচালনায় ‘আমি তোমার হতে চাই’ ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন তিনি। শিগগিরই এর শুটিং শুরু হবে বলে জানান লাক্স চ্যানেল আই সুপারস্টার খ্যাত এ তারকা। এর আগে ‘জোনাকির আলো’, ‘ব্ল্যাক’, ‘সুইট হার্ট’ ছবিগুলোর মাধ্যমে দর্শক মহলে বেশ আলোচনায় আসেন মিম। টিভি মাধ্যম থেকে চলচ্চিত্রে এসেছেন তিনি। অনেক অভিজ্ঞতা। ছোটপর্দার এ  অভিজ্ঞতা চলচ্চিত্রে কতটুকু কাজে লেগেছে মিমের?

এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, টিভি মাধ্যম হলো অভিনয় শেখার একটা বড় জায়গা। লম্বা সময় ধরে সেখানে কাজ শিখেছি। অভিনয়টাকে নিজের মধ্যে আয়ত্ত করেছি। আর সেটা কাজে লাগিয়েছি চলচ্চিত্রে। এখন চলচ্চিত্রে যে মিমকে দেখতে পাচ্ছেন তার বড় অবদান হলো টিভিপর্দা। আর আমার আজকের অবস্থানের পেছনে পুরো ক্রেডিটটা লাক্স-চ্যানেল আই সুপারস্টার প্রতিযোগিতা। কারণ, এখানেই তো আমার উত্থান।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য