Songorshoনিজস্ব প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের বীরগঞ্জে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নিজপাড়া ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মোঃ আব্দুল খালেক সরকার এবং আওয়ামীলীগ মনোনিত প্রার্থী মোঃ নুরিয়াস সাঈদ সরকাররের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ সময় মোঃ বাবুল হোসেন (৫০) একজন আহত হয়েছে।

আহত বাবুল হোসেন নিজপাড়া ইউনিয়নের দাঁড়িয়াপুর গ্রামের মোঃ পতিব উদ্দিনের ছেলে। ৩০ মে সোমবার রাত ৮টায় নিজপাড়া ইউনিয়নের কল্যাণী বাজারে এ সংঘর্ষে ঘটনা ঘটে।

আওয়ামীলীগ মনোনিত পরাজিত প্রার্থী মোঃ নুরিয়াস সাঈদ সরকার জানান, সন্ধ্যায় কল্যাণী বাজারে আমার হাস্কিং মিলের চাতালে দলীয় নেতা-কর্মীসহ নির্বাচনী কর্মীদের নিয়ে মতবিনিময় চলছিল।

এ সময় রাত আনুমানিক ৮টায় মোঃ আব্দুল খালেক সরকারের নেতৃত্বে ৫ শতাধিক লোক লাঠি-সোটা নিয়ে আমাদের মতবিনিময় অনুষ্ঠানে হামলা চালায়। এ সময় ব্যবসায়ী মোঃ বাবুল হোসেন (হাস্কিং মিলটি ভাড়া নিয়ে ব্যবসা করেন) লাঠির আঘাতের গুরুতর আহত হয়। পুলিশ আসার পর তারা পালিয়ে যায়।  বর্তমানে বাবুল হোসেনকে আশংকাজনক অবস্থায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে নিজপাড়া ইউনিয়নে বিজয়ী এবং বর্তমান চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুল খালেক সরকারের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, ঘটনার সময় আমি স্থানীয় এমপির কার্যালয়ে দিনাজপুর ছিলাম।

আমার কর্মীদের কাছে জানতে পেরেছি যে তাদের মতবিনিময় অনুষ্ঠানে একজন কর্মী সভার বিষয়টি জানার জন্য গিয়েছিল। সেখানে নুরিয়াস সাঈদ সরকারের লোকজন তাকে আটকের পর মারধর করে। পরে স্থানীয় লোকজন সেখানে গিয়ে তাকে উদ্ধার করে নিয়ে আসে।

বীরগঞ্জ থানার ওসি মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ঘটনাস্থলে পুলিশ অবস্থান নিয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত এবং স্বাভাবিক রয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য