দিনাজপুরে সেন্ট ফিলিপস্ ডে ও রবীন্দ্র-নজরুল জয়ন্তী উদযাপনস্টাফ রিপোর্টার ॥ সেন্ট ফিলিপস্ হাই স্কুল এন্ড কলেজের আয়োজনে সেন্ট ফিলিপস্ ডে ও রবীন্দ্র-নজরুল জয়ন্তী ২০১৬ উদযাপিত হয়েছে। এ উপলক্ষে ২৯ মে রোববার সকাল সাড়ে ৮টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত প্রদীপ প্রজ্জলন, আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

দু’পর্বের অনুষ্ঠানের প্রথম পর্বে প্রভাতি শাখা (প্রাথমিক) সকাল সাড়ে ৮টা হতে সোয়া ১০টা পর্যন্ত এবং দিবা (মাধ্যমিক ও কলেজ) শাখা সকাল পৌনে ১১টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত ওই কর্মসূচী পালিত হয়। প্রথম পর্বের অনুষ্ঠানের শুরুতে প্রদীপ প্রজ্জলন করেন প্রতিষ্ঠানের উপাধ্যক্ষ ব্রাদার সুব্রত রোজারিও সিএসসি। প্রদীপ প্রজ্জলনের পর সেন্ট ফিলিপ এর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পন করা হয়।

শেষে আলোচনা সভা ও মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়। আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন প্রাথমিক শাখার ইনচার্জ সিস্টার হাসি রোজারিও সিআইসি, সহকারী শিক্ষিকা শারমীন সাফায়েত প্রমুখ। দ্বিতীয় পর্বে দিবা মাধ্যমিক ও কলেজ শাখার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সেন্ট ফিলিপ এর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পন করেন প্রতিষ্ঠানের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ব্রাদার নির্মল ফ্রান্সিস গমেজ সিএসসি।

উদ্বোধনী বক্তব্য রাখেন সিনিয়র শিক্ষক মাওলানা আবেদ আলী, কবি রবীন্দ্রনাথ এর জীবনীর উপর বিশ্লেষণ করেন সিনিয়র শিক্ষক কালীপদ রায়, কবি নজরুল এর জীবনী বিষয়ক বক্তব্য রাখেন শিক্ষিকা মেনোকা রায় এবং সেন্ট ফিলিপ এর জীবন বর্ণনা করেন প্রভাষক স্পেরাতুস বিশ্বাস প্রমুখ।

উল্লেখ্য, ৭ মে ১৮৬১ সালে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর জন্ম গ্রহন করেন, ২৫ মে ১৮৯১ সালে কবি কাজী নজরুল ইসলাম জন্ম গ্রহন করেন এবং যার নামকরনে এই প্রতিষ্ঠানটি সেন্ট ফিলিপ তিনি ২৬ মে ১৬২২ সালে ইতালীর পোপ জর্জ ফিপটিন ফিলিপ রমলো নেরীর নামের একটি সেন্ট নামে উপাধি প্রদান করেন সেই থেকে তার নাম হয় সেন্ট ফিলিপ। ফিলিপ রমলো নেরী ২১ জুলাই ১৫১৫ সালে ইতালীর ফ্লরেন্স শহরে জন্ম গ্রহন করেন এবং ২৫ মে ১৯৯৫ সালে ইতালীর রোম শহরে মৃত্যুবরণ করেন।

তিনি একজন ক্যাথলিক পুরহিত ছিলেন। ১৫৭৫ থেকে তাঁর মৃত্যুর আগ মুহুর্ত পর্যন্ত সন্যাসী জীবনযাপন করেন। তাঁর মৃত্যুর পরে ১৬২২ সালে ২৬ মে ইতালীর পোপ জর্জ ফিপটিন তাঁর নামের পাশে সেন্ট নামে উপাধি দেন যার অর্থ সাধু। এরপর থেকে সেন্ট ফিলিপ নামে পরিচিতি হন তারই নাম অনুসারে সেন্ট ফিলিপস্ হাই স্কুল এন্ড কলেজ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য