দিনাজপুর পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারিদের মানববন্ধননিজস্ব প্রতিনিধিঃ দিনাজপরে পৌরসভা কর্মকর্তা-কর্মচারিরা মানববন্ধন কর্মসূচী পালন শেষে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেছে।

পৌরসভা কর্মকর্তা-কর্মচারিদের বেতন-ভাতা ও পেনশন সুবিধা সরকারি রাজস্ব তহবিল হতে প্রদানের দাবীতে তারা এই কর্মসূচী পালন করে।

সোমবার (১৬ মে) সকাল ১০টা থেকে ১১টা পর্যন্ত ঘন্টাব্যাপী দিনাজপুর পৌরসভার সামনে তারা এই মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করে। পৌরসভা কর্মকর্তা-কর্মচারি এসোসিয়েশন দিনাজপুর পৌরসভা কমিটির সভাপতি মো. মজিবুর রহমান বাচ্চু’র সভাপতিত্বে মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য রাখেন দিনাজপুর পৌরসভার মেয়র সৈয়দ দিনাজপুর পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারিদের মানববন্ধনজাহাঙ্গীর আলম, প্যানেল মেয়র মো. রেহাতুল ইসলাম খোকা, পৌরসভা কর্মকর্তা-কর্মচারি এসোসিয়েশনের কেন্দ্রীয় নেতা মো. নুরুল হুদা, রংপুর বিভাগীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক ও দিনাজপুর পৌরসভার প্রকৌশলী মো. হাবিবুর রহমান, দিনাজপুর পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী মো. ফজলুল হক, কর্মকর্তা-কর্মচারি এসোসিয়েশন দিনাজপুর জেলা কমিটির সভাপতি মো. রইচ উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক মো. লাইছুর রহমান, সহকারী প্রকৌশলী মো. বদিউজ্জামান ফারুকী, মীর তোফাজ্জাল হোসেন, মো. আমজাদ আলী, দিনাজপুর জেলা কমিটির সহ-সভাপতি ও বীরগঞ্জ পৌরসভার কর নির্ধারক মো. হারুন অর রশিদ প্রমূখ।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, সংবিধান, আইন ও সরকারী গেজেট মতে পৌরসভা একটি সংবিধিবদ্ধ সংস্থা হওয়ায় কর্মচারীরা সরকারী। কিন্তু পৌরসভার বেলায় দ্বৈতনীতি লক্ষ্য করা যায়। এই দ্বৈতনীতি চলতে পারে না। স্থানীয় সরকার বিভাগের আওতাধীন এলজিইডি, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল, এনআইএলজি, উপজেলা পরিষদসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা ও  পেনশন সুবিধা সরকারের রাজস্ব তহবিল হতে প্রদান করা হলেও পৌরসভার বেলায় তা করা হয় না। অবিলম্বে সরকারের এই দ্বৈতনীতি প্রত্যাহারের দাবী জানান। বক্তারা বলেন, দাবী আদায় না হলে আগামী ২৮ মে ঢাকা প্রেসক্লাবের সামনে যে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হবে, সেই মানববন্ধন থেকে দাবী আদায়ে বৃহত্তর কর্মসূচী ঘোষণা করা হবে।

মানববন্ধনে বিরামপুর পৌরসভার মেয়র মো. লিয়াকত আলী সরকার, দিনাজপুর পৌর পরিষদসহ দিনাজপুর ও বীরগঞ্জ পৌরসভার সকল পর্যায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারী অংশগ্রহণ করেন।
দিনাজপুর পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারিদের মানববন্ধন
মানববন্ধন শেষে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর একটি স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।  দিনাজপুরের জেলা প্রশাসক মীর খায়রুল আলম স্মারকিলিপি গ্রহণ করেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য