নির্বাচন প্রচারণাওয়েব ডেস্কঃ দিনাজপুরের চিরিরবন্দরে আসন্ন ৭মে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর দিকে সকলেই তাকিয়ে রয়েছে। ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দিনাজপুরের মধ্যে সবচেয়ে বেশি সহিংসতার ঘটনা ঘটে দিনাজপুর ৪ নির্বাচনী আসনে। ভোট পরবর্তী ঘটনাসহ নির্বাচনী সহিংসতার মামলা হয়েছে ২৫টি।

আগামী ৭মে ১২টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন। সেখানে বিএনপি ১০ জন, আওয়ামীলীগ ১২ জন, জাতীয় পার্টি ৬ জন ও স্বতন্ত্র ২০জন সহ ৪৮ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। নশরতপুর ইউনিয়ন পরিষদের বিএনপি মনোনিত চেয়ারম্যান প্রার্থী নূরে আলম সিদ্দিকী নয়ন, সাইতাড়া ইউনিয়ন পরিষদের বিএনপি মনোনিত চেয়ারম্যান প্রার্থী মোকারম হোসেন, আব্দুলপুর ইউনিয়ন পরিষদের বিএনপি মনোনিত চেয়ারম্যান প্রার্থী ময়েন উদ্দীন শাহ্, আলোকডিহি ইউনিয়ন পরিষদের বিএনপি মনোনিত চেয়ারম্যান প্রার্থী মীর্জা লিয়াকত আলী বেগ জানান, চিরিরবন্দরে সুষ্ঠ নির্বাচনের জন্য বিএনপির সকল প্রার্থী মন্ত্রীর দিকে তাকিয়ে রয়েছেন।

আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থীরা প্রভাব বিস্তারের চেষ্টা করছেন। বিএনপির পক্ষে যেসব নেতাকর্মী প্রচারনা চালাচ্ছেন তাদের বিভিন্নভাবে হুমকি ও হয়রানী করা হচ্ছে। কিন্তু মন্ত্রী তার এলাকায় কোন সহিংসতা ও ভোট কারচুপির প্রশ্রয় দেবেন না এই বিশ্বাস তারা করেন। বেলতলী বাজারের সাধারণ ভোটার আমিনুল ইসলাম, ইব্রাহিম হোসেন জানান, পররাষ্ট্রমন্ত্রী একজন ভাল মানুষ। তাঁর সুনাম ও ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করতে আওয়ামীলীগের জনৈক দলত্যাগী নেতা কৌশলে মাঠে নেমেছেন এবং গনমাধ্যম কর্মীকে হুমকি দিচ্ছেন।

উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক অধ্যক্ষ আহসানুল হক মুকুল জানান, সুষ্ঠ নির্বাচন করতে আওয়ামীলীগ সবরকম সহযোগিতা দিতে প্রস্তুত। দুই একজন প্রার্থীর জন্য আওয়ামীলীগ ও মন্ত্রীর সুনাম যাতে নষ্ট না হয় সে বিষয়ে উপজেলা আওয়ামীলীগ সতর্ক রয়েছে। জেলা আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য জেড,এইচ, মোহাম্মদ আলী শামীম জানান, নির্বাচনে কোন অনিয়ম দুর্নীতিতে প্রশ্রয় দেয়া হবে না। নির্বাচন সুষ্ঠ করতে বর্তমান সরকার কঠোর রয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য