ঠাকুরগাঁওয়ে সাংবাদিকের দোকান ঘর দখলের চেষ্টাঠাকুরগাঁওয়ে কর্মরত দৈনিক জনকণ্ঠের নিজস্ব সংবাদদাতা এস, এম জসিম উদ্দিনের বাবার নির্মিত একটি দোকান ঘর অবৈধভাবে জোরপূর্বক দখলের চেষ্টায় লিপ্ত হয়েছে জনৈক মান্নান মোল্লা নামে এক ব্যক্তি। এ নিয়ে স্থানীয় সাংবাদিকদের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

অভিযোগে জানা যায়, ১৯৭৪ সালে তৎকালীন মহকুমা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে ঠাকুরগাঁও শহরের বঙ্গবন্ধু সড়কের পাশে সাংবাদিক জসিমের বাবা মফিজ উদ্দিন অর্পিত সম্পত্তির ১ শতক জমি একসনা লীজ প্রাপ্ত হয়ে ব্যবসা পরিচালনা করতে থাকেন। ১৯৮২ সালে তিনি যথাযথ কর্তৃপক্ষের অনুমোদন নিয়ে নিজ খরচে একটি কাঠের দোতলা ঘর নির্মাণ করেন এবং এর নীচতলায় ব্যবসা পরিচালনা করেন। ওই সময় ওই দোতলায় অবস্থান নিয়ে জসিম পড়ালেখা চালিয়ে এসএসসি, এইচএসসি ও বিকম পাশসহ সাহিত্য-সাংস্কৃতিক চর্চা অব্যাহত রাখেন। এক পর্যায়ে জসিমের বাবা বার্ধক্যজনিত অসুস্থ্যতার কারণে ব্যবসা স্থগিত রেখে ঘরটি বন্ধ রাখেন।

ওই সময় ফুটপাতে ব্যবসা চালনাকারী মান্নান মোল্লা কৌশলের আশ্রয় নিয়ে জসিমের বাবার হাতে-পায়ে ধরে কাকুতি-মিনতিসহ পবিত্রগ্রন্থ মাথায় নিয়ে ওই ঘরে যৌথব্যবসা শুরু করেন। এক পর্যায়ে মান্নানের বৃদ্ধ বাবা অসুস্থ্য হয়ে ইন্তেকাল করলে মান্নান জসিমের বাবার নামে চলমান লীজটি নিজ নামে বন্দোবস্ত  নেওয়ার অপচেষ্টায় লিপ্ত হয়। এমতাবস্তায় জসিমের বাবা মানসিক ভাবে ভেঙ্গে পড়েন এবং সামাজিক সমঝোতার লক্ষ্যে স্থানীয় পৌরসভা ও ব্যবসায়ী সমিতির কাছে সুবিচার প্রার্থনা করলে তারা মান্নানকে যৌথব্যবসা ছেড়ে চলে যেতে আদেশ করেন। কিন্তু  মান্নান জজ আদালতে জসিমের বাবার উপর চিরস্থায়ী নিষেধাহ্গা চেয়ে মোকদ্দমা দায়ের করেন। ওইসময় আদালতে মামলা চলার কারণে সংশি¬ষ্ট কর্তৃপক্ষ লীজ আদেশ কার্যক্রম স্থগিত রাখার নির্দেশ দেন। এক পর্যায়ে সেই মোকদ্দমা হাইকোর্ট ও সুপ্রীম কোর্টে পৌছায়। সেখানে বিচার-বিশে¬ষন শেষে একে একে দুই আদালতের বিজ্ঞ বিচারক মান্নানের আবেদন খারিজ করে দেন।

এরমধ্যে মানষিক ভাবে বিপর্যস্ত জসিমের বাবা   ইন্তেকাল করেন। পরে জসিম আদালতের কাগজপত্র সহ নিজ নামে লীজ আদেশ চেয়ে কর্তৃপক্ষের কাছে কয়েকবার আবেদন করে। এদিকে বিশেষ সুবিধা/ফায়দা লাভের আশায় জসিমের বাবার ঘরটি অবৈধভাবে জোড়পূর্বক দখলে নিতে মান্নানকে পিছন থেকে সহায়তা দিতে শুরু করেছে বিশেষ একটি চক্র।
এ নিয়ে স্থানীয় সাংবাদিকদের মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করছে। প্রেসক্লাবসহ সাংবাদিকদের নেতৃবৃন্দ জসিমের অপূরণীয় ক্ষতি থেকে রক্ষা পেতে তার আবেদনটি বিবেচনার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে অনুরোধ জানিয়েছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য