সৈয়দপুরে প্রতিবন্ধির স্ত্রী ৭ দিন ধরে প্রেমিকের বাড়িতে অনশননীলফামারীর সৈয়দপুরে এক বাকপ্রতিবন্ধির স্ত্রী তার প্রেমিকের বাড়িতে ৭ দিন ধরে অনশন করছে। গত ২৪ এপ্রিল থেকে আজ পর্যন্ত এ অনশন পালন করছে। এলাকাবাসী ও মামলা সূত্রে জানা যায়, সৈয়দপুর উপজেলার কামারপুকুর দলুয়া মুন্সিপাড়া গ্রামের মৃত জমেতুল্লার ছেলে বাকপ্রতিবন্ধী মিজানুর রহমানের সাথে বিয়ে হয় রংপুর জেলার তারাগঞ্জ উপজেলার ধোলাইখাল এলাকার মোহাম্মদ আলীর মেয়ে শাহিনুরের সাথে। সংসার জীবনে তাদের ৩ সন্তান জন্ম নেয় এবং স্ত্রী সন্তান নিয়ে ভালই চলছিল প্রতিবন্ধির সংসার।

এর মাঝে বাধা হয়ে দাঁড়ায় পরকিয়া প্রেম। পাশের বাড়ির মুদি দোকানদার মৃত আব্দুল জব্বারের ছেলে জিয়ারুল শাহিনুরকে বিভিন্ন প্রলোভন দেখাতে থাকে এক পর্যায়ে তার কবলে পড়ে শাহিনুর। লালসার শিকার হয় জিয়ারুলের। প্রতিবন্ধী মিজানুর ইটভাটায় নাইট গার্ডের চাকুরী করায় রাতে বেলা জিয়ারুল শাহিনুরের সাথে তার বাড়িতে অবৈধভাবে মেলামেশায় লিপ্ত হয়।

এক পর্যায় তাদের ওই অবৈধ মেলা মেশা পরিবারের লোকজেরন কাছে ধরা পড়ে। পরবর্তীতে উভয়ে ক্ষমা চেয়ে রক্ষা পায়। কিন্তু আবার কয়েকদিন পর পুনরায় ধরা পড়লে শাহিনুরকে তার বাবার বাড়িতে পাঠিয়ে দেয় মিজানুরের পরিবারের লোকজন। সেখানে কিছুদিন অবস্থান করলে সে ভাল হবে এ আশায়। কিন্তু জিয়ারুল নিজেকে বাঁচাতে শাহিনুরের বাড়ি গিয়ে তার যাবতীয় দায়ভার গ্রহণের কথা বলে আদালতে নারী শিশুসহ দুইটি মামলা দায়ের করে স্বামীর আত্মীয় স্বজনের বিরুদ্ধে।

ওই মামলায় সাক্ষী করা হয়েছে জিয়ারুলসহ তার মনোনিত ব্যক্তিদের। আর আসামী করা হয়েছে মিজানুরের বোন, ভগ্নিপতি, ভাগিনাসহ ৭ জনকে। এনিয়ে কয়েকবার গ্রাম্য সালিশ বৈঠক বসে। বৈঠকে কোন সুরাহা হয়নি। এরই মধ্যে ঘটনা তদন্ত করে সৈয়দপুর থানা পুলিশ। এ ব্যাপারে কথা হয় শাহিনুরের সাথে তিনি বলেন, জিয়ারুলের কারণে আমি মিথ্যা মামলা দায়ের করেছিলাম। তার সাথে আমার সম্পর্ক ছিল। সে আমার জীবন নষ্ট করেছে। আমি তার বিচার দাবি করছি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য