কেপ ভার্দেতে গুলিতে নিহত ১১আফ্রিকা মহাদেশের পশ্চিম উপকূলীয় আটলান্টিক মহাসাগরের দ্বীপরাষ্ট্র কেপ ভার্দেতে গুলি করে আট সেনা, দুই স্প্যানিস নাগরিক ও এক বেসামরিক ব্যক্তিকে হত্যা করা হয়েছে।

মঙ্গলবার রাজধানী প্রায়া থেকে ২৭ কিলোমিটার উত্তরে সান্তিয়াগো দ্বীপের বন অধ্যুষিত এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে বলে এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন দেশটির আন্তর্জাতিক প্রশাসনমন্ত্রী পাউলো রোচা।

সান্তিয়াগোর মোন্তে টচোটা এলাকায় একটি টেলিযোগাযোগ ক্ষেত্রে ওই ব্যক্তিদের হত্যা করা হয়। নিহত সবার বয়স ২০ থেকে ৫১ বছরের মধ্যে।

বিবৃতিতে রোচা জানিয়েছেন, সেখানে নিয়োজিত সামরিক দলটির সঙ্গে যুক্ত এক সেনা ঘটনার পর থেকে নিখোঁজ রয়েছেন।

“সে-ই এ ঘটনার জন্য দায়ী, সব ইঙ্গিতেই এমন ধারণা পাওয়া যাচ্ছে,” বলেন তিনি।

ব্যক্তিগত আক্রোশবশত এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে অনুমান করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন মন্ত্রী। ঘটনাটি ‘সরকারের বিরুদ্ধে আক্রমণ’, এমন সম্ভাবনা বাতিল করে তিনি সবাইকে শান্ত থাকার আহ্বান জানিয়েছেন।

নিহত স্প্যানিস নাগরিকেরা টেলিযোগাযোগ কারিগর হিসেবে এবং স্থানীয় বেসামরিকরা সহকর্মী হিসেবে ক্ষেত্রটিতে কাজ করছিলেন বলে জানিয়েছেন রোচা।

এ ঘটনার সঙ্গে মাদক চোরাচালানীদের যুক্ত থাকার কোনো ইঙ্গিত পাওয়া ‍যায়নি বলে নিশ্চিত করেছেন তিনি।

ঘটনাস্থল থেকে নয়টি রাইফেল খোয়া যায়। কিন্তু পরে প্রায়ার সিত্তাদেল্লা আবাসিক এলাকায় একটি গাড়ি থেকে সেগুলো উদ্ধার করা হয়।

ল্যাটিন আমেরিকা থেকে ইউরোপে কোকেন পাচারের রুট হিসেবে কেপ ভার্দেকে ব্যবহার করা হয়। মাদক অপরাধীচক্রের চোরাচালানের বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করার পর থেকে দেশটিতে প্রতিশোধমূলক গুলিবর্ষণের ধারাবাহিক ঘটনা ঘটে চলছে।

সাবেক পর্তুগিজ উপনিবেশ এই দ্বীপপুঞ্জে পাঁচ লাখ মানুষ বসবাস করেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য