রোটারী ক্লাবের ৩৬তম অভিষেক অনুষ্ঠানে ভিসি হাবিপ্রবিস্টাফ রিপোর্টার ॥ হাবিপ্রবি দিনাজপুর এর ভিসি প্রফেসর মোঃ রুহুল আমিন বলেছেন, মানবতার কল্যাণে কাজ করে যারা আনন্দ পায় তারাই প্রকৃত রোটারীয়ান। এক সময় আমাদের দেশে কিছুই ছিল না।

আমাদের অর্থনীতি ছিল খুবই ছোট। এখন গ্রাম এগিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশও এগিয়ে যাচ্ছে। দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে এবং সমাজের উন্নয়নে আজ রোটারীয়ানদের প্রয়োজন। সবাই মিলে আমরা দেশটাকে গড়তে চাই, সমাজকে গড়তে চাই।

গত ২২ এপ্রিল শুক্রবার রাতে নিমতলা রোটারী সেন্টারে রোটারী ক্লাব অব দিনাজপুর আয়োজিত “পৃথিবীরের জন্য নিজেকে তৈরী কর”-এই শ্লোগানকে সামনে রেখে ৩৬তম অভিষেক ও কলার হস্তান্তর অনুষ্ঠানে তিনি প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথাগুলো বলেন।

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখছেন গিয়ে পুলিশ সুপার মোঃ রুহুল আমিন বলেন, আর্ত-মানবকার কল্যাণে যে কাজ রোটারী ক্লাব করে যাচ্ছে তা জনসন্মুখে প্রকাশ করতে হবে। স্বাগত বক্তব্য রাখেন অভিষেক উদযাপন কমিটির চেয়ার পার্সন রোটাঃ আরিফুর রহমান।

শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন বিদায়ী ক্লাব প্রেসিডেন্ট রোটাঃ মনোয়ারুল হক মার্শাল ও নব-নির্বাচিত প্রেসেডেন্ট মিসেস দিলরুবা চৌধুরী। রোটারী প্রত্যয় পাঠ করেন পিপি রণজিৎ কুমার সিংহ পিএইচএফ, ডেপুটি সেক্রেটারী (রংপুর জোন)। বার্ষিক প্রতিবেদন পাঠ করেন ক্লাব সেক্রেটারী আব্দুস সাত্তার। প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথি ক্লাবের স্মরণিকা “রামসাগর” এর মোড়ক উন্মোচন করেন।

সহযোগিতা করেন স্মরণিকার সম্পাদক, ডেপুটি গভর্নর রোটাঃ নিজাম উদ্দিন আহম্মেদ রয়েল। ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন পিপি ডাঃ শহিদুল ইসলাম খান। সঞ্চালকের দায়িত্ব পালন করেন ডেপুটি ট্রেইনার পিপি আবউদস সালাম তুহিন, পিএইচএফ। সভায় আনুষ্ঠানিকভাবে বিদায়ী প্রেসিডেন্ট রোটাঃ মনোয়ারুল হক মার্শাল নব-নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট মিসেস দিলরুবা চৌধুরী আরএফএসএম এর  গলায় রোটারী কলার পরিয়ে দায়িত্ব অর্পণ করেন। পরে রোটারী পরিবারের সদস্য ও তাদের সন্তানরা এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করেন। সর্বশেষে র‌্যাফেল ড্র পরিচালনা করেন রোটাঃ মোঃ মমিনুল ইসলাম।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য