DDinajpurস্টাফ রিপোর্টার ॥ শিল্প সহায়ক কেন্দ্র, বিসিক, দিনাজপুরের উপ-মহাব্যবস্থাপক মোঃ হাসনাত হোসেন বলেছেন, বেকার শিক্ষিত যুবক-যুবতীরা সোনার হরিণ চাকুরীর পিছনে না ঘুরে মৌমাছি পালন করে স্বাবলম্বি হওয়া সম্ভব। মধু রোগ নিবারণের ক্ষেত্রে মহা ঔষধ। শারীরিক  নিরাপত্তার জন্য মধু খাওয়া দরকার।

মধু গুনাগুন ও উপকারীতা সমন্ধে সাধারন মানুষকে সচেতন করতে হবে। মৌমাছি পালনের মাধ্যমে শিক্ষিক বেকার যুবক যুবতীদের দক্ষতা বৃদ্ধি করতে পারলে একজন মধু পালন হিসেবে ভাল মধু মানুষকে খাওয়াতে পারবেন।

২৩ এপ্রিল বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুঠির শিল্প করপোরেশন, শিল্প সহায়ক কেন্দ্র বিসিক দিনাজপুর আয়োজিত আধুনিক প্রযুক্তি প্রয়োগের মাধ্যমে মৌ-চাষ উননয়ন প্রকল্পের আওতায় ১৭ এপ্রিল হতে ২৩ এপ্রিল ১ সপ্তাহব্যাপী মৌমাছি পালন দক্ষতা উন্নয়ন প্রশিক্ষন কোর্সের সমাপনী অনুষ্ঠানে তিনি প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথাগুলো বলেন।

স্বাগত বক্তব্য ও সঞ্চাকের দায়িত্ব পালন করেন বিসিক বাঁশেরহাট মৌমাছি পালন কর্মসূচী’র সম্প্রসারণ কর্মকর্তা মোঃ সাজেদুল ইসলাম। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন বিসিক দিনাজপুরের জরিপ ও তথ্য কর্মকর্তা (ভারঃ) আবুল কালাম আজাদ। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন প্রশিক্ষক পিয়ার উদ্দিন আহম্মেদ ও প্রশিক্ষনার্থীদের পক্ষে কৌশিক চক্রবর্ত্তী।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য