রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালেরংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ইন্টার্ন চিকিৎসক পরিষদের ডাকা ধর্মঘট প্রত্যাহার করা হয়েছে। সোমবার সকালে মেডিকেল কলেজের হলরুমে প্রায় ২ ঘণ্টাব্যাপী বৈঠকে আলোচনা ফলপ্রসু হওয়ায় ধর্মঘট প্রত্যাহার করে নেয় সংগঠনটি।

বৈঠক শেষে ইন্টার্ন চিকিৎসক পরিষদের সভাপতি ড. মাহমুদুর রহমান রিফাত জানান, আমাদের দাবির প্রেক্ষিতে প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে। তারা  পুলিশ ক্যাম্প স্থাপনকরাসহ মেডিকেল ক্যাম্পাসে এবং ছাত্রাবাস ও ছাত্রীনিবাসে পর্যাপ্ত আলোর ব্যবস্থা ও নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দেওয়ায় ধর্মঘট প্রত্যাহার করে ।

রংপুর মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডা. জাকির হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৈঠকে মেডিকেল কলেজের পরিচালক আ.স.ম বরকতুল্লাহ, ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার আব্দুল্লাহ-আল-ফারুক, কোতয়ালী থানা পুলিশের ভারপ্রপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ বি এম জাহিদুল ইসলাম, স্বাচিপ নেতা ডা. মামুন-উর-রশীদ, বিএমএ নেতা ডা. নুরুন্নবী লাইজু, ইন্টার্ন চিকিৎসক পরিষদের সভাপতি ডা. মাহমুদুর রহমান রিফাত, সাধারণ সম্পাদক বিজন সরকারসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। পরে মেডিকেলের পরিচালক, মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ও পুলিশ সুপার অস্থায়ী পুলিশ ক্যাম্পের ভিত্তি প্রস্তর উদ্বোধন করেন।

প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৯ টার দিকে ডিউটি শেষে হাসপাতাল থেকে ক্যাম্পাসের হোস্টেলে ফেরার পথে ইন্টার্ন চিকিৎসক সুমনের উপর হামলা চালায় সন্ত্রাসীরা। সন্ত্রাসীরা এসময় সুমনকে বেদম মারপিট করে নগদ অর্থ ও একটি মোবাইল ফোন কেড়ে নেয়। আহত অবস্থায় ডা. সুমনকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

বহিরাগত সন্ত্রাসী কর্তৃক ইন্টার্ন চিকিৎসকের উপর হামলাকারিদের গ্রেফতার, ক্যাম্পাসে স্থায়ী পুলিশ ফাঁড়ি স্থাপন ও ইন্টার্ন চিকিৎসকদের নিরাপত্তাসহ ৫ দফা দাবিতে শুক্রবার থেকে অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতি শুরু করে ইন্টার্ন চিকিসক পরিষদ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য