লিচুর পরিচর্যা ২ডেক্স রিপোর্টঃ লিচুর জেলা হিসেবে দিনাজপুর সারাদেশ ব্যাপক পরিচিতি লাভ করেছে। এই জেলার ১৩টি উপজেলাতে লিচু চাষ দিন দিন বেড়ে চলছে। প্রতি বছর বাড়ছে লিচু চাষের জমির পরিমাণ। এদিকে এবার মধুমাসের ফল লিচুর বাম্পার ফলনের সম্ভবনা দেখা দিয়েছে।

দিনাজপুর জেলার প্রতিটি লিচুর গাছ এখন ছেয়ে গেছে মুকুলে। এ বছর আবহাওয়া অনুকুলে থাকায় লিচুর বাম্পার ফলনেরও আশা করছেন লিচু চাষিরা। ফলন ভালো পেতে লিচু বাগানের পরিচর্যায় ব্যস্ত সময় পার করছেন তারা।[ads1]

দিনাজপুর জেলার সব এলাকাতেই দেখা গেছে লিচুর বাগানে মুকুলের সমারহ। এতিমধ্যে গাছ গুলোতে লিচুর গুটিও আসতে শুরু করেছে। আর গুটি ধরে রাখতে চাষিরা বিভিন্ন ধরনের ভিটামিন ওষুধ স্প্রেসহ পরিচর্যার কোনো ত্রুটিই রাখছেন না।

জেলার কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর দিনাজপুরনিউজকে জানিয়েছে, জেলার  প্রায় ৩০০০ হেক্টর জমিতে লিচুর বাগান রয়েছে। চলতি মৌসুমে এবার সব গুলোই মুকুলে মুকুলে ভরপুর।
লিচুর পরিচর্যা ১
বিরল উপজেলার বেশ কিছু এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, চায়না-৩, মাদ্রাজি, বোম্বাই, এবং বেদানা জাতসহ বিভিন্ন জাতের লিচুর বাগান গুলোর ৮৫ থেকে ৯৫ ভাগ গাছেই মুকুল এসেছে।[ads1]

উপজেলার শংকরপুর গ্রামের লিচু চাষি আব্দুর রশীদ দিনাজপুর নিউজকে জানান, এই উপজেলা থেকে বেশ কয়েক বছর ধরে লাখ লাখ টাকার লিচু বিক্রি হচ্ছে। এবার আবহাওয়া অনুকুলে থাকায় গত বছরের চেয়েও এ বছর লিচু গাছে ব্যপক মুকুল এসেছে। আর এই লিচুর গুটি গুলো ধরে রাখতে পারলে চলতি মৌসুমে লিচুর ভালো হওয়ার সম্ভবনা রয়েছে।

উপজেলার মাধববাটি গ্রামের লিচু চাষি সোলায়মান হোসেন জানান, এই উপজেলার লিচু অনেক সুস্বাদু। গত বছর তার ১০টি মাঝারি আকারের লিচু গাছ থেকে প্রায় ১লক্ষ ২০হাজার টাকার লিচু বিক্রি করেছিলেন। তিনি আশা করছেন, এ বছর গত বছরের চেয়েও বেশি টাকার লিচু বিক্রি করবেন।

বিভিন্ন উপজেলার কৃষি কর্মকর্তারা দিনাজপুর নিউজকে জানান, ‘লাভজনক হওয়ায় দিনাজপুরে দিন দিন লিচু চাষ বেড়েই চলছে। গত বছরের চেয়েও এবার লিচুর ফলন ভালো হওয়ার সম্ভবনা রয়েছে।’[ads1]

তিনি আরো বলেন, সঠিক সময়ে গাছের পরিচর্যা করা হলে লিচুর ফলন অনেক বেড়ে যাবে। তাই  কৃষি বিভাগ মাঠ পর্যায়ে গিয়ে লিচু বাগান মালিক ও চাষিদেরকে বিভিন্ন পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছে। ছবি-সংগ্রহিত
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য