দিনাজপুরের খানসামা উপজেলার পাবলিক হেয়ারিং অনুষ্ঠানস্টাফ রিপোর্টার ॥ দিনাজপুরের জেলা লিগ্যাল এইড অফিসার ও সিনিয়র সহকারী জজ মাহবুব আলী মুয়াদ বলেছেন সম্মিলিত প্রচেষ্টায় সরকারী খরচে অসহায় মানুষের পাশে থেকে বিচার প্রাপ্তির মাধ্যমে ন্যায্য অধিকার নিশ্চিত করতে হবে। সরকারী খরচে আইনি সহায়তা পাওয়া মানে এই নয় যে, অহেতুক মামলা করা কিছু মামলা আমরা বাদী বিবাদী করে একাত্রি করে নিশ্চপত্তি করতে পারি। এ ব্যাপারে ইউনিয়ন লিগ্যাল এইড কমিটি যথেষ্ট সহায়তা করতে পারে।
[ads1]
বুধবার দিনাজপুর জেলার খানসামা উপজেলার ৪নং খামারপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরে সরকারী খরচে আইন সহায়তা বিষয়ক প্রাতিষ্ঠানিক এইড-কুমিল্লা, জাস্টিস ফর অল দিনাজপুর প্রকল্প এবং জেলা লিগ্যাল এইড কমিটি দিনাজপুর, জাতীয় আইন সহায়তা প্রদান সংস্থার যৌথ আয়োজনে পাবলিক হেয়ারিং অনুষ্ঠানে তিনি প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথাগুলো বলেন। ইউনিয়ন লিগ্যাল এইড কমিটি ও ৪নং খামারপাড়া ইউনিয়ন এর চেয়ারম্যান মোঃ খালিকুজ্জামান চৌধুরীর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন এইড-কুমিল্লা সংস্থার প্রোগ্রাম ম্যানেজার আবুল হোসেন।
[ads1]
ইউএসএআইডি’র জাস্টিস ফর অল প্রোগ্রামের কমিউনিকেশন এন্ড অ্যাওয়ারনেস ম্যানেজার নন্দ লাল সুত্রধর ও লিগ্যাল অফিসার মোঃ মোস্তফা কামাল। উক্ত অনুষ্ঠানে বিষয়ভিত্তিক বিস্তারিত আলোচনা করেন এইড-কুমিল্লা দিনাজপুর-এর প্রোজেক্ট কো-অর্ডিনেটর মোঃ দেলোয়ার হোসেন ও প্রোগ্রাম ম্যানেজার আবুল হোসেন। সভায় উপস্থিত নারী পুরুষ অংশগ্রহণকারীরা পাবলিক হেয়ারিং-এ বিভিন্ন প্রশ্ন করলে প্রধান অতিথি তার উত্তর দেন।
[ads1]
উল্লেখ্য পাবলিক হেয়ারিং অনুষ্ঠানে দরিদ্র ও অস্বচ্ছল ব্যক্তি যাদের বার্ষিক আয় ১ লক্ষ টাকার উর্দ্ধে নয় এমন পরিবার, দরিদ্র, বিধবা, তালাক প্রাপ্তা নারী, বিনা বিচারে আটক ব্যক্তি, বয়স্ক ভাতা, ভিজিডি কার্ড ধারী ইত্যাদি, ২ হাজার সালের প্রণিত আইনের বলে জেলা লিগ্যাল এইড অফিস হতে বিনা খরচে যাতায়াত ব্যতিত সবধরনের আইনি সহায়তা জেলা লিগ্যাল এইড অফিস থেকে প্রদান করা হয়।
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য