শিক্ষার বেসরকারিকরণ-বাণিজ্যিকীকরণ সংকোচন নীতি এবং ব্যয় বৃদ্ধির বিরুদ্ধে স্মারকলিপি পেশ P1ডেক্স রিপোর্টঃ ২১শে জানুয়ারী সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের ৩২ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত ছাত্র সমাবেশে এবং শিক্ষামন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি পেশের কর্মসূচিতে সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট দিনাজপুর জেলা শাখার আহাবয়ক এবং বাসদ (মার্কসবাদী) জেলা শাখার সদস্য এ.এস.এম কনিরুজ্জামা মনির বলেন, সৈরাচার এরশাদের শিক্ষা সংকোচন বিরোধী ছাত্র আন্দোলনের অগ্নিগর্ভ সময়ে এবং পুঁজিবাদী শোষণ বৈষমমূলক ব্যবস্থার বিরুদ্ধে সমাজতান্ত্রিক সমাজ নির্মানের পরিপূরক ছাত্র আন্দোলন গড়ে তোলার প্রত্যয়ে ১৯৮৪ সালের ২১শে জানুয়ারী মার্কবাদী লেলিনবাদ এবং শিবদাস ঘোষের চিন্তা-ধারার ভিত্তিতে সর্বজনীন বিজ্ঞনভিত্তিক সেক্যুলার একইধারার গণতন্ত্রিক শিক্ষা ব্যবস্থা প্রবর্তনের দাবীতে আমাদের সংগঠনের আত্মপ্রকাশ হয়েছিল।

প্রতিষ্ঠাকালীন সময় থেকে আমরা আমাদের সংগঠনের পক্ষ থেকে শিক্ষার ব্যয় বৃদ্ধির বিরুদ্ধে এবং শাসকগোষ্ঠীর শিক্ষা সংকোচন  নীতির বিরুদ্ধে ধারাবাহিক লড়াই সংগ্রাম চালিয়ে যাচ্ছি। তিনি বলেন, আজকে দেশের শিক্ষা ব্যবস্থার আরও ভয়াবহ সংকটের মুখে। স্কুল থেকে শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যন্ত সমস্ত স্তরে শিক্ষার ব্যয় ক্রমাগতভাবে বাড়ছে। অন্যদিকে আসন সংখ্যা সংকুচিত করে ফেলা হচ্ছে। স্কুলে নতুন করে পি,এস,সি ও জে,এস,সি, পরীক্ষা চালুর মাধ্যমে স্কুলের শিক্ষা কার্যক্রম আরও সংকটগ্রস্থ হয়েছে।
শিক্ষার বেসরকারিকরণ-বাণিজ্যিকীকরণ সংকোচন নীতি এবং ব্যয় বৃদ্ধির বিরুদ্ধে স্মারকলিপি পেশ P2
ফল ভালো দেখিয়ে সরকার বাহ্বা কুড়াতে চাইছে। কিন্তু শিক্ষার গুনগত মানের কোন পরিবর্তন হয়নি। বরং কোচিং বাণিজ্য গাইড বইয়ের উপর নির্ভরশীলতা আরও বেড়েছে। উচ্চ শিক্ষা লাভের আরেক প্রতিষ্ঠান জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় সম্প্রতি ক্রাশ প্রোগ্রামের নামে ছাত্রদের জীবনকে ক্রাশ করার পরিকল্পনা নিয়েছে। তাই তিনি বলেন শাসকগোষ্ঠীর এ সমস্ত শিক্ষার বাণিজ্যিকীকরণ বেসরকারীকরন এবং শিক্ষার সংকোচন নীতির বিরুদ্ধে তীব্র ছাত্র আন্দোলন  গড়ে তুলতে হবে।

সমাবেশ পরিচালনা করেন ছাত্র ফ্রন্ট জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক সুকুমার রায় সৌরভ। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ছাত্র ফ্রন্ট দিনাজপুর সরকারি কলেজ শাখার আহবায়ক গোবিন্দ চন্দ্র রায়। সমাবেশ শেষে একটি মিছিল প্রেসক্লাব থেকে শহরের মূল সড়ক হয়ে ডিসি অফিসে গিয়ে শেষ হয়। সমাবেশ থেকে একটি টিম ডিসির মাধ্যমে শিক্ষামন্ত্রী বরাবরে স্মারকলিপি পেশ করে।

স্মারকলিপিতে অবিলম্বে পি,এস,সি ও জে,এস,সি পরীক্ষা বাতিল এবং স্কুল কলেজে বর্ধিত ফি বাতিল সহ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ২১০ দিন ক্লাস নিশ্চিত করার জন্য পর্যাপ্ত শিক্ষক নিয়োগ, ক্লাসরুম নির্মান এবং লাইব্রেরী সোমিনারে পর্যাপ্ত বই সরবরাহ করা এবং পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০ বছর মেয়াদী কৌশলপত্র বাতিলের দাবি জানানো হয়।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য