তাইওয়ানে প্রথম নারী প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছেন সাই ইং ওয়েনআন্তর্জাতিক:  শোনিবার দেশটিতে অনুষ্ঠিত গুরুত্বপূর্ণ প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে বিরোধী ডেমোক্রেটিক প্রগ্রেসিভ পার্টির (ডিপিপি) নেতা স্বাধীনতাপন্থী সাই ইং-ওয়েন ক্ষমতাসীন কুওমিনটাং দলের (কেএমটি) প্রার্থী এরিক চুকে পরাজিত করেন। এ কারণে দেশটির সঙ্গে চীনের সম্পর্ক নিয়ে অনিশ্চয়তার আশঙ্কা সৃষ্টি হয়েছে। খবর বিবিসির।

জয় নিশ্চিত হওয়ার পর দেওয়া বক্তব্যে সাই ইং-ওয়েন চীনের সঙ্গে সম্পর্কে বিদ্যমান অবস্থা বহাল রাখার পক্ষে মত দেন। তিনি বলেন, চীনকে তাইওয়ানের গণতান্ত্রিক ব্যবস্থাকে শ্রদ্ধা করতে হবে। এ ছাড়া উভয় পক্ষকে উসকানি থেকে বিরত থাকতে হবে।

তাইওয়ানকে নিজেদের একটি বিচ্ছিন্ন প্রদেশ হিসেবে বিবেচনা করে চীন। তারা বলে থাকে, দ্বীপটিকে নিজের নিয়ন্ত্রণে রাখার প্রয়োজনে শক্তি প্রয়োগ করতেও প্রস্তুত।

প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে এটি ডিপিপি দলের এযাবৎকালের মধ্যে মাত্র দ্বিতীয় বিজয়। এর আগে ২০০০ থেকে ২০০৮ সালে স্বাধীনতাপন্থী ডিপিপি প্রেসিডেন্ট চেন শুই-বিয়ানের সময় চীনের সঙ্গে উত্তেজনা বেড়েছিল।

মনে করা হচ্ছে নির্বাচনে বিগত ৭০ বছরের বেশি সময় ধরে তাইওয়ানের ক্ষমতায় থাকা কেএমটি দলের প্রার্থীর পরাজয়ের মধ্য দিয়ে দেশটিতে স্বাধীনতাপন্থীদের জয় হলেও চীনের সঙ্গে দেশটির সম্পর্ক ঝুঁকির মুখে পড়বে। চীনের সঙ্গে সম্পর্ক ছাড়াও ঝিমিয়ে পড়া অর্থনীতি ছিল ভোটারদের কাছে বড় বিবেচনার বিষয়।

তাইওয়ানে প্রথমবার নারী প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য