ইরানের কাছে বিমান বিক্রির অনুমোদন দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রআন্তর্জাতিক ডেস্কঃ ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের কাছে যাত্রীবাহী বিমান বিক্রির অনুমোদন দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। ইরানের ওপর থেকে যখন পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার জন্য সব রকমের প্রস্তুত চলছে তখন ওবামা এ অনুমোদন দিলেন। এর ফলে ইরানের কাছে যাত্রীবাহী বিমান বিক্রির বিষয়ে কয়েক দশকের মার্কিন নিষেধাজ্ঞারও অবসান হবে।

বারাক ওবামা প্রেসিডেন্সিয়াল মেমোরেন্ডামের মাধ্যমে গতকাল (শুক্রবার) মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরিকে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় দিক নির্দেশনা দিয়েছেন। এ মেমোরেন্ডাম প্রেসিডেন্টের নির্বাহী আদেশের সমপর্যায়ের গুরুত্ব বহন করে। কয়েকদিনের মধ্যে ইরান ও ছয় জাতিগোষ্ঠী পরমাণু সমঝোতা বাস্তবায়ন করবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।   এ প্রসঙ্গে মার্কিন জাতীয় সহকারী নিরাপত্তা উপদেষ্টা বেন রোডস বলেছেন, “তারা (ইরান) পরমাণু ইস্যুতে গুরুত্বপূর্ণ ধাপগুলো প্রায় শেষ করেছে এবং এ নিয়ে গোপন কিছু নেই। তেহরানের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়ার পরপরই বিমান বিক্রির সিদ্ধান্ত কার্যকর করা হবে।”

এদিকে, মার্কিন দৈনিক ইউএসএ টুডে বলেছে, পরমাণু সমঝোতার দুটি ব্যতিক্রম থাকবে। তা হচ্ছে- আমেরিকা থেকে ইরান যাত্রীবাহী বিমান কিনতে পারবে এবং ওয়াশিংটনের কাছে কার্পেট বিক্রি করতে পারবে তেহরান।

পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞার কারণে ইরানের কাছে সব ধরনের বিমান বিক্রি নিষিদ্ধ ছিল এবং এ কারণে ইরান এয়ারলাইন্স মারাত্মক সমস্যার মুখে পড়েছিল। পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞা উঠে গেলে সে সমস্যা কেটে যাবে বলে আশা করা হচ্ছে।

ইরানের সড়ক ও নগর উন্নয়নমন্ত্রী আব্বাস আখুন্দি জানান, নিষেধাজ্ঞা উঠে গেলে ইরানের জন্য ৫০০ যাত্রীবাহী বিমান লাগবে। বর্তমানে ইরানের কাছে ২৪৮টি বিমান রয়েছে যা গড়ে প্রায় ২০ বছরের পুরনো। এর মধ্যে ১০০ বিমান চলাচলের অনুযোগী অবস্থায় রয়েছে।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য