খানসামাকে জেলার সর্বপ্রথম বাল্যবিবাহমুক্ত উপজেলা ঘোষণাডেক্স রিপোর্টঃ সরকারের সাফল্য অর্জন ও উন্নয়ন ভাবনা বিষয়ে জনগণকে অবহিতকরণ এবং উন্নয়ন কার্যক্রমে সম্পৃক্তকরণের লক্ষ্যে গণযোগাযোগ অধিদপ্তরের বিশেষ প্রচার কর্মসূচির আওতায় জেলা তথ্য অফিস দিনাজপুর ও উপজেলা প্রশাসন খানসামা এর যৌথ উদ্যোগে এবং প্লান ইন্টারন্যাশনাল এর সহযোগিতায় ১৪জানুয়ারি ২০১৬ বৃহস্পতিবার সকাল ১০.৩০ মিনিটে খানসামা উপজেলা পরিষদ চত্বরে আলোচনা সভা, সঙ্গীতানুষ্ঠান ও বাল্যবিবাহমুক্ত উপজেলা ঘোষণা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার এর মাননীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী এম.পি.। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক দিনাজপুর মীর খায়রুল আলম এবং স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর দিনাজপুর এর নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ খলিলুর রহমান।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার খানসামা মোঃ সাজেবুর রহমান এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় আরো বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট সমাজসেবক মোঃ আবদুল জাব্বার, প্লান ইন্টারন্যাশনাল এর প্রোগ্রাম ইউনিট ম্যানেজার মোঃ মোবারক হোসেন, উপজেলা ইঞ্জিনিয়ার সুবীর কুমার সরকার ও ফ্রিল্যান্সিং এসোসিয়েশন দিনাজপুর শাখার সভাপতি মোঃ সাদ্দাম হোসেন।

সভায় বর্তমান সরকারের বিগত ০৭ বছরে বিভিন্ন ক্ষেত্রে উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরার পাশাপাশি ভবিষ্যৎ উন্নয়নের প্রতিবন্ধকতাসমূহ হিসেবে মাদক, জঙ্গীবাদ, যৌতুক, বাল্যবিবাহ ও স্যানিটেশনকে চিহ্নিত করে এসব সমস্যা দূরীকরণের উপায় নিয়ে বিষয়ভিত্তিক বক্তব্য উপস্থাপন করেন সিনিয়র তথ্য অফিসার দিনাজপুর আবুল কালাম মোহাম্মদ শামসুদ্দিন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মাননীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী এম.পি. বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত ‘দিন বদলের সনদ, ভিশন-২০২১’ এর টার্গেট অনুযায়ী ২০২১ সালের আগেই বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হবে। বাংলাদেশ বিদ্যুৎ ও জ্বালানী খাতে, শিক্ষা খাতে, সামাজিক নিরাপত্তা খাতে অভূতপূর্ব সাফল্য অর্জন করেছে। নারী উন্নয়নে ও নারীর ক্ষমতায়নে বাংলাদেশ আজ জার্মানীর মত উন্নত দেশগুলোর জন্যও মডেল। জলবায়ুর বিরূপ প্রভাব মোকাবেলায় বাংলাদেশ সারাবিশ্বের জন্য উদাহরণ। অর্থনীতিতে বাংলাদেশ আজ চীনের সাথে পাল্লা দিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে।

খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করে বাংলাদেশ এখন বিদেশে খাদ্য রপ্তানী করছে। গত সাত বছরে খানসামা ও চিরিরবন্দর উপজেলায় যে উন্নয়ন হয়েছে, তার সাক্ষী এ এলাকার জনগণ। তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশ আজ বিশ্ব সভায় মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছে। মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উন্নয়নের এ ধারা অব্যাহত রেখে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে তিনি জনগণের প্রতি আহ্বান জানান। এরপর মাননীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রী দিনাজপুর জেলার সর্বপ্রথম উপজেলা হিসেবে খানসামা-কে বাল্য বিবাহমুক্ত উপজেলা ঘোষণা করেন ও  ফলক উম্মোচন করেন। এর আগে তিনি নবনির্মিত খানসামা উপজেলা কমপ্লেক্স ভবন উদ্বোধন করেন ও মোনাজাতে অংশগ্রহণ করেন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক মীর খায়রুল আলম বলেন, সরকারের উন্নয়নের সুফল জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দেয়ার ক্ষেত্রে মাদক, জঙ্গীবাদ, যৌতুক, বাল্যবিবাহ ও স্যানিটেশন এর মত সামাজিক সমস্যাগুলো বাধা হয়ে দাড়িয়েছে। এসব বাধা মোকাবেলায় দলমত, বয়স, লিঙ্গ নির্বিশেষে সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করা দরকার। বাল্যবিবাহমুক্ত উপজেলার যথার্থ সুফল পেতে হলে তিনি মেয়েদের বিদ্যালয়মুখী করা এবং আই.সি.টি.’র সুবিধা নিয়ে ফ্রিল্যান্সিং এর আওতায় লেখাপড়ার পাশাপাশি যুবক-যবতিদের কর্মসংস্থানের উপর গুরুত্বারোপ করেন। পর্যায়ক্রমে দিনাজপুরের অন্যান্য উপজেলাকেও বাল্যবিবাহ ও মাদকমুক্ত করার হবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

সভায় খানসামা উপজেলার বিভিন্ন পর্যায়ের সরকারি কর্মকর্তা, এনজিওকর্মী, ধর্মীয় নেতৃবৃন্দ, মুক্তিযোদ্ধা, ছাত্র-শিক্ষক-অভিভাবক, সাংবাদিকসহ প্রায় ১০০০জন অংশগ্রহণ করেন। আলোচনা সভার পূর্বে দিনাজপুর জেলা তথ্য অফিসের শিল্পীগণ উন্নয়ন বিষয়ক সঙ্গীত পরিবেশন করেন।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য