চিরিরবন্দরে নেশাখোর স্বামীর ছোড়া গরম চা-এ ঝলসে গেছে স্ত্রীর শরীরনিজস্ব প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের চিরিরবন্দরে নেশাখোর স্বামীর ছোড়া গরম চা-এ মুখমন্ডল ঝলসে যাওয়া স্ত্রী ও দুই সন্তানের জননী সাবিনা এখন হাসপাতালের বিছানায় কাতরাচ্ছে। ঘটনাটি ঘটেছে গত ২৩ ডিসেম্বর বুধবার সকালে উপজেলার নান্দেড়াই ফুলতলা মরিচওয়ালা পাড়ায়।

আহত সাবিনা জানান, ঘটনার দিন সকাল ৮টায় বাসায় তৈরী চা খাওয়ার সময় চা-তে চিনি কম অনুভব হলে তৎক্ষনাত স্বামী দুলাল হোসেন (২৭) রান্নাঘরে থাকা স্ত্রী সাবিনা আকতারের (২২) চোখেমুখে চায়ের কাপ ছুড়ে দেয়। এতে সাবিনার চোখমুখসহ শরীরের বিভিন্ন অঙ্গ ঝলসে যায়। বিষয়টি বাইরে প্রকাশ না করার জন্য ওইদিন সারাদিন সাবিনাকে বাড়ীতে আটকে রাখে।

পরদিন বৃহস্পতিবার সাবিনার বাবার বাড়ীর লোকজন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য চিরিরবন্দর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করায়। সাবিনার বাবার বাড়ী উপজেলার আন্ধারমুহা আশ্রায়ন পাড়ায়। সাবিনার বাবা মজিবর রহমান জানান, ৫ বছর পূর্বে একই উপজেলার নান্দেড়াই ফুলতলা মরিচওয়ালা পাড়ার মৃতঃ রোস্তম আলীর ছেলে দুলালের সাথে ৪০ হাজার টাকা যৌতুকের বিনিময়েতার মেয়ে সাবিনার বিয়ে হয়।

যৌতুকের কিছু টাকা বাকী থাকার কারনে বিয়ের পর হতে তার উপর প্রায় শারীরিক নির্যাতন চালাতো দুলাল। বিষয়টি নিয়ে ইতিপূর্বে ইউনিয়ন পরিষদে বেশ কয়েকবার শালিস বৈঠকও হয়েছে। বুধবারের বিষয়টি সম্পর্কে আব্দুলপুর ইউপি চেয়ারম্যান ময়েনউদ্দিন শাহ’র সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি এখন পর্যন্ত এ বিষয়ে ওয়াকিবহাল নন।
সতর্কবার্তাঃ-
উক্ত বিষয়ে রিপোর্টটির কোন অংশ সংযোজন, বিয়োজন, সংশোধন, পরিবর্তন করে ব্যবহার বা অনুমতি ব্যতিত এর কোন কন্টেন্ট ব্যবহার আইনগত অপরাধ যে কোন ধরনের কপি-পেষ্ট কঠোর ভাবে নিষিদ্ধ এবং কপিরাইট আইনে বিচার যোগ্য তবে রিপোর্টি ফেসবুকে সেয়ার করতে কোন বাধা নেই । চিরিরবন্দর প্রতিনিধিঃ দেলোয়ার হোসেন বাদশা। 
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য