দিনাজপুরে আবেগাপ্লুত অভিভাবকরা হতাশ হয়ে বাড়ি ফিরলেননিজস্ব প্রতিনিধিঃ দিনাজপুর জিলা স্কুল ও সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে ৩য় শ্রেণীর ভর্তিচ্ছুক ছাত্রছাত্রীদের পিতামাতা অভিভাবকরা সন্তানদের নিয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন। দিনাজপুর প্রশাসন ও প্রধান শিক্ষকরা নিরুপায় বলে দাবি করছেন।

বৃহস্পতিবার পিতামাতা অভিভাবকরা দিনাজপুর শহীদ মিনারে প্রতীক অনশন শেষে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ করে। অভিভাবক মামুন ও মাহবুবা হতাশ হয়ে সাংবাদিকদের বলেন, আমরা উদ্বিগ্ন ও উৎকন্ঠিত আমাদের কথা কেউ শুনছে না। জেলা প্রশাসক ও প্রধান শিক্ষকরা বলছেন, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত আমাদের করার কিছুই নেই।
দিনাজপুরে আবেগাপ্লুত অভিভাবকরা হতাশ হয়ে বাড়ি ফিরলেন 24-12-15
আমরা যারা সন্তানদের মনিং সিফটে দিয়েছে তারা হতাশ। একই পরীক্ষায় দুরকম সিদ্ধান্ত আমাদের ছেলেমেয়েদের ধ্বংসের দিকে নিয়ে যাচ্ছে। এভাবে মেধা যাচাই সম্ভব নয়। শিশুদের নিয়ে এ ষড়যন্ত্র বন্ধ করতে হবে। আমরা চাই মেধা অনুসারে ভর্তি নেয়া হোক। আমাদের কথা কেউ রাখলো না। শুধু মাত্র দৈনিক করতোয়া আমাদের জ্বালাযন্ত্রনা উদ্বিগ্ন ও উৎকন্ঠার ভাষা বুঝতে পেরে ছবিসহ খবর প্রকাশিত করেছে। এটাই আমাদের একমাত্র শান্তনা।

আবেগাপ্লুত অভিভাবক মামুন বলেন, শনিবার পরীক্ষা আর হয়ত সম্ভব নয় তবে আমাদের শিশু সন্তানদের ভাগ্যে যা ঘটার তাই ঘটবে। তবে আমাদের বিশ্বাস আগামীদিন শিক্ষা মন্ত্রানালয়ে এ নিয়ম বাতিল করে শিশু সন্তানদের নিয়ে বৈষম্যের যবনিকা ঘটাবে। সকাল থেকে অনশন ও বিক্ষোভ সমাবেশ শেষে পিতামাতা ও অভিভাবকরা হতাশ হয়ে বাড়ি ফিরে যান।

সতর্কবার্তাঃ-
উক্ত বিষয়ে রিপোর্টটির কোন অংশ সংযোজন, বিয়োজন, সংশোধন, পরিবর্তন করে ব্যবহার বা অনুমতি ব্যতিত এর কোন কন্টেন্ট ব্যবহার আইনগত অপরাধ যে কোন ধরনের কপি-পেষ্ট কঠোর ভাবে নিষিদ্ধ এবং কপিরাইট আইনে বিচার যোগ্য তবে রিপোর্টি ফেসবুকে সেয়ার করতে কোন বাধা নেই । সংবাদাতাঃ শাহারিয়ার হিরু, দিনাজপুর।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য